• মঙ্গলবার   ১৫ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ১ ১৪২৮

  • || ০৫ জ্বিলকদ ১৪৪২

জাগ্রত জয়পুরহাট

নিয়ত না করে নামাজ পড়লে কি আদায় হবে?

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ৮ জুন ২০২১  

ইমানের পর ইসলামের সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ আমল হল সালাত বা নামাজ। নামাজ ইসলামের প্রাণ। মুমিন এবং কাফেরের মাঝে বড় পার্থক্য হল নামাজ। পাঁচ ওয়াক্ত ফরজ নামাজ ছাড়াও নফল নামাজ পড়ার বিধান ইসলামী শরিয়তে রয়েছে।

নামাজের নিয়ত নিয়ে অনেকেই চিন্তিত থাকেন। কেউ কেউ মনে করেন, নামাজের নিয়ত মুখে উচ্চারণ করে করতে হয়। 

অনেকে বলেন, সমাজে যে আরবি নিয়ত প্রচলিত আছে তা বলতে হয়, নইলে কমপক্ষে মুখে এতটুকু বলতে হয় যে, আমি নামাজের নিয়ত করছি।

এমন ধারণা সঠিক নয়। কারণ নামাজ বা রোজার জন্য মৌখিক নিয়ত জরুরি নয়; বরং অন্তরে সংকল্প করাই যথেষ্ট। 

সুতরাং এ কথা ভাবার কোনো সুযোগ নেই যে, মুখে নিয়ত না করলে নামাজ হবে না।

নিয়ত আরবি শব্দ। যার অর্থ হলো- ইচ্ছা বা সংকল্প। আর ইচ্ছার স্থান হচ্ছে অন্তর। তা মুখে উচ্চারণ করার বাধ্যবাধকতা নেই। অন্তরের দৃঢ় সংকল্প ও ইচ্ছা করার নামই হলো নিয়ত।

একজন বিবেকবান, সুস্থ মস্তিষ্ক, বাধ্য করা হয়নি- এমন লোক কোনো কাজ করবে আর সেখানে তার কোনো নিয়ত বা ইচ্ছা থাকবে না সেটা সম্ভব নয়। নামাজ একটি গুরুত্বপূর্ণ আমল, সুতরাং নামাজের পূর্বে নিয়ত করা প্রয়োজন। নিয়ত হলো অন্তরের সাথে দৃঢ় সংকল্প, শব্দের সাথে এর কোনো সম্পর্ক নেই।

এছাড়া অর্থ না জানলে তো নিয়তই হবে না। তাই মনের মধ্যে ইচ্ছা নিয়ে আল্লাহু আকবার বলে নামাজ শুরু করে দেবেন, তাহলেই হবে।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট