• সোমবার   ০২ আগস্ট ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১৮ ১৪২৮

  • || ২৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

জাগ্রত জয়পুরহাট

বিয়ে ছাড়াই ২০বছরের সংসার,ছেলেকে সাক্ষী বানিয়ে বাবা-মায়ের মালাবদল

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ১৭ জুলাই ২০২১  

২০ আগে প্রেম হয় দুজনের মধ্যে। তারা একসঙ্গে থাকাও শুরু করেন। ১৩ বছর আগে একটি বাচ্চাও জন্ম দেন তারা। কিন্তু এতদিন তারা বিয়ে করেননি। এবার ছেলেকে সাক্ষী রেখে মালাবদল করলেন তারা।

ভারতের উত্তরপ্রদেশের উন্নাওয়ের রসুলপুর রুরি গ্রামে এমন ঘটনা ঘটে। ৬০ বছরের নারায়ণ রাইদাস ও ৫৫ বছর বয়সী রামরতিকে নিয়ে এখন আলোচনায় পঞ্চমুখ।

জানা যায়, ২০০১ সালে নারায়ণের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে রামরতির। দু’জনেরই পরিবারের কোনো সদস্য না থাকায়, নারায়ণ এবং রামরতি একসঙ্গে থাকা শুরু করেন। চাষের কাজ করে সংসার চালাতেন তারা। একে অপরকে বিয়ে না করে একসঙ্গে থাকার জন্য প্রতিদিন গ্রামবাসীদের গঞ্জনা এবং লাঞ্ছনার শিকার হতে হতো তাদের।

নারায়ণ ও রামরতির ভালবাসার কাছে যেন সেসব নির্যাতন তুচ্ছ ছিল। সব সহ্য করেও তারা তাদের হাত ছাড়ে‌ননি। তাদের অজয় নামের ১৩ বছরের একটি ছেলেও আছে। নবদম্পতির এই বিয়ের সাক্ষী থাকলেন তাদেরই একমাত্র সন্তান।

তাদের বিয়ে নেপথ্যে রয়েছে গ্রামপ্রধানের অবদান। গ্রামপ্রধান রমেশ কুমার, সমাজকর্মী ধর্মেন্দ্র বাজপেয়ী এবং সুনীল পাল নারায়ণকে বিয়ে করার পরামর্শ দেন। গ্রামপ্রধান বিয়ের সব খরচ বহন করার আশ্বাসও দেন। অবশেষে তারা রাজিও হন।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট