মঙ্গলবার   ০৫ মার্চ ২০২৪ || ২১ ফাল্গুন ১৪৩০

প্রকাশিত: ০৬:০৩, ১ মে ২০২৩

ধূমপান ছাড়তে খাঁচা দিয়ে নিজের মাথা ও মুখ আটকালেন যুবক!

ধূমপান ছাড়তে খাঁচা দিয়ে নিজের মাথা ও মুখ আটকালেন যুবক!

ধূমপান ছাড়ব, ছাড়ব করেও অনেকে এই নেশা থেকে নিজেকে মুক্ত করতে পারেন না। কেউ ছেড়ে দিলেও আবার কোনো না কোনো অজুহাতে মুখে তুলে নেন সিগারেট। প্যাকেটের পর প্যাকেট ধোঁয়ায় উড়ে যায়। কিন্তু ধূমপানের নেশাকে পুরোপুরি দূর করতে পারেন না বেশির ভাগ মানুষ। এমনও ভয়াবহ নেশাকে দূর করতে গিয়ে আর এক নেশায় জড়িয়ে পড়েছেন অনেকে।

কিন্তু কখনও শুনেছেন, ধূমপান ছাড়তে নিজের মাথা, মুখ খাঁচা দিয়ে আটকে দিয়েছেন কেউ। শুধু আটকে দেওয়াই নয়, ওই খাঁচায় আবার তালাও লাগিয়েছেন। এমনকি ওই তালার চাবি পরিবারের সদস্যদের হাতে তুলে দিয়েছেন যাতে ইচ্ছা করলেও যখন তখন ওই তালা খুলে ধূমপান করতে না পারেন। বিষয়টি অবিশ্বাস্য মনে হলেও, তুরস্কের এক যুবক ওই কাজটাই করেছেন।

তুর্কি সংবাদপত্র হুরিয়ত ডেইলি-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই যুবকের নাম ইব্রাহিম ইউসেল। ঘটনাটি অনেক পুরনো। তবে আবার ভাইরাল হয়েছে ইব্রহিমের ওই ছবি। ২০১৩ সালে এই ছবিটি প্রকাশ্যে এসেছিল। সেই সময় দাবি করা হচ্ছিল ওই ব্যক্তি রাশিয়ার। যদিও পরে জানা গেছে যে তিনি রুশ নাগরিক নন, একজন তুর্কি। 

ওই প্রতিবেদন অনুসারে, ইব্রাহিম দিনে কয়েক প্যাকেট সিগারেট খেতেন। কিন্তু তার বাবার মৃত্যুর পর সিগারেট থেকে নিজেকে দূরে রাখার চেষ্টা করেন তিনি। ইব্রাহিমের বাবার মৃত্যু হয়েছিল ফুসফুসের ক্যানসারে। তা দেখে সিগারেট ছাড়ার কথা ভাবেন ইব্রাহিম।

কিন্তু ছাড়ব বললেই তো আর নেশা ছাড়া যায় না! ফলে সমস্যায় পড়তে হয় ইব্রাহিমকে। কিন্তু সিগারেট যে তাকে ছাড়তেই হতো। তাই এমন কিছু একটা করতে চাইছিলেন যাতে সিগারেট খাওয়া পুরোপুরি ছেড়ে দিতে পারেন। তখনই তার মাথায় আসে হেলমেটের কথা। আর ওই হেলমেট থেকেই অনুপ্রেরণা নিয়ে একটি খাঁচা বানিয়ে ফেলেন। এরপর সেটিকে মাথায় পরে নেন। ওই খাঁচায় আবার তালাও লাগিয়ে দেন। চাবি তুলে দেন পরিবারের হাতে। ইব্রাহিমের এই ‘কৃচ্ছ্রসাধন’ দেখে হতবাক নেটাগরিকরা।

জাগ্রত জয়পুরহাট

সর্বশেষ

জনপ্রিয়