বৃহস্পতিবার   ২৫ এপ্রিল ২০২৪ || ১১ বৈশাখ ১৪৩১

প্রকাশিত: ১০:৩০, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

আপডেট: ১০:৩১, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

যেসব হিসাব-নিকাশে আটকে আছে পাকিস্তানের সরকার গঠন

যেসব হিসাব-নিকাশে আটকে আছে পাকিস্তানের সরকার গঠন
সংগৃহীত

পাকিস্তানে নির্বাচনের  ১১ দিন পেরিয়ে গেলেও কোন দল সরকার গঠন করবে তা পরিষ্কার হয়নি। নির্বাচন শেষ হওয়ার পরপর সরকার গঠনের জন্য দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছিলো নওয়াজ শরিফের পিমএলএন। তারা বিলাওয়াল ভু্ট্টোর পিপিপির সঙ্গে জোট গঠনের চেষ্টা শুরু করে। এরপর জোট করে সরকারে আসার বিষয়ে একমতও হয়েছিলো পিপিপি, পিএমএল-এন সহ মোট ৬টি দল। 

পরবর্তীতে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পাকিস্তান মুসলিম লীগের সঙ্গে বিলাওয়াল ভুট্টোর দল পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) জোট সরকার গঠনের ঘোষণা এলেও বারবার দুই দলের মধ্যে আলোচনা স্থগিত হয়ে যাচ্ছে। এমনকি নওয়াজের দলের মধ্যেই দেখা দিয়েছে বিভক্তি। তাদের বৈঠকগুলো বারবার সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হচ্ছে।

বৈঠকে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট, সংসদের উচ্চকক্ষ সিনেটের চেয়ারম্যান ও নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদের স্পিকার পদের দাবি করেছে পিপিপি। এই তিন সাংবিধানিক পদের বিনিময়ে জাতীয় পরিষদে পিএমএল-এন-এর প্রধানমন্ত্রী প্রার্থীকে সমর্থন দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে বিলাওয়ালের দল।

পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম এআরওয়াই নিউজ জানিয়েছে, বিভিন্ন দলের সম্বন্বয়ে গঠিত জোট সরকারের প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী হবেন শাহবাজ শরিফ। অন্যদিকে আসিফ আলি জারদারি হবেন পরবর্তী প্রেসিডেন্ট।

সূত্র জানায়, পিপিপি জাতীয় পরিষদেরে স্পিকার ও সিনেট চেয়ারম্যানের পদ দাবি করলে তা প্রত্যাখ্যান করেছে পিএমএল-এন। দলটি বলছে, সিনেটের চেয়ারম্যান হবে পিএমএল-এন থেকে। তবে স্পিকার পদ নিয়ে এখানো কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।

এমন অনিশ্চিত পরিস্থিতির মধ্যে ক্ষমতা ভাগ-বাটোয়ারায় বিন্দুমাত্র ছাড় না দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন পিপিপির চেয়ারম্যান বিলাওয়াল। মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টে সাংবাদিকদের তিনি বলেছেন, তিনি ও তার দল পিপিপি তাদের অবস্থানে অনড়। যদি কেউ নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন না করে তাহলে তিনিও অবস্থান পরিবর্তন করবেন না।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচনে কোনো দল সরকার গঠনের জন্য এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। স্বতন্ত্র প্রার্থীরা মোট ১০১টি আসনে জয়ী হয়েছেন। এর মধ্যে ৯৩টি আসনেই জয় পেয়েছেন পিটিআই সমর্থিত প্রার্থিরা। অন্যদিকে নওয়াজ শরিফের পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) ৭৫টি আসন পেয়েছে, আর বিলাওয়াল ভুট্টোর পিপিপি পেয়েছে ৫৪টি আসন।

নির্বাচনী ফলাফল অনুযায়ী, বর্তমানে কোনো দলেরই এককভাবে সরকার গঠনের জন্য পর্যাপ্ত আসন নেই। এমন অবস্থায় একদিকে নওয়াজ শরিফের দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) এবং বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারির দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) সরকার গঠনের লক্ষ্যে কৌশলী পদক্ষেপ নিতে শুরু করেছে। অন্যদিকে ইমরান খানের দল পিটিআই একটি জোট গঠনের বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করছে।

সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়