• মঙ্গলবার   ৩১ জানুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৮ ১৪২৯

  • || ০৯ রজব ১৪৪৪

জাগ্রত জয়পুরহাট

আর্জেন্টিনার পতাকার রংয়ে অটোরিকশা সাজালেন কুড়িগ্রামের আশরাফুল

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ১৪ নভেম্বর ২০২২  

আর মাত্র এক সপ্তাহ পর কাতারে শুরু হতে যাচ্ছে ফিফা বিশ্বকাপ-২০২২। ফুটবল নিয়ে থেমে নেই ভক্ত ও সমর্থকদের উন্মাদনা। এমনি এক খেলার ভক্ত হলেন কুড়িগ্রামের আশরাফুল আলম। পেশায় অটোরিকশা চালক তিনি। তার ব্যাটারিচালিত রিকশাটি রং করেছেন পছন্দের দল আর্জেন্টিনার পতাকার আদলে। 

শহরের ভেতর দিয়ে আশরাফুল যখন আর্জেন্টিনার পতাকা সজ্জিত অটোরিকশাটি চালিয়ে যান তখন পথচারী ও অন্য বাহনের যাত্রীরা ফিরে তাকিয়ে দেখেন। কুড়িগ্রাম পৌরশহরের ধরলা অববাহিকার একতা পাড়া গ্রামের বাঁধের পাড়ের বাসিন্দা তিনি। বিবাহিত আশরাফুলের তিন বছর বয়সী একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। পছন্দের দলের প্রতি সমর্থন এবং শুভকামনা জানাতে নিজের জীবিকা নির্বাহের মাধ্যম বাহনটি আর্জেন্টিনার পতাকার রংয়ে রাঙিয়েছেন।

অটোরিকশা চালক আশরাফুল জানান, ছোটবেলা থেকেই তিনি ফুটবল খেলা ভালোবাসেন। আর বিশ্বকাপ ফুটবলে তার পছন্দের দল আর্জেন্টিনা। তার বিশ্বাস এবারের বিশ্বকাপে তার দল ফাইনাল খেলবে এবং চ্যাম্পিয়ন হয়ে ট্রফি জিতে নিবে।

তিনি বলেন, ‘আমি ২০০২ সাল থেকে ফুটবল খেলা দেখি। তখন থেকেই আমি আর্জেন্টিনার সমর্থক। তাদের খেলা আমার খুব ভালো লাগে। এর আগে ২০১০ সালে আমি আমার একটি বাই সাইকেল আর্জেন্টিনার পতাকার রংয়ে রাঙাই। এখন যেহেতু আমার জীবিকার বাহন এই অটোরিকশা সেজন্য এটা আমার পছন্দের দলের পতাকার রংয়ে রাঙিয়েছি।’

শহরের ধরলা ব্রিজ এলাকার শাহিন আলম বলেন, আমি ছোট থেকেই আর্জেন্টিনার সাপোর্ট করে আসছি। বিশ্বকাপ আসলে খুব ভালো লাগে আমার। আর্জেন্টিনারের কোনো খেলা মিস করি না আমি। আমার এখানকার এক চালক ভাই আর্জেন্টিনার পতাকার আদলে অটোরিকশা রং করেছে দেখে খুব ভালো লাগছে।

আশরাফুল আরও বলেন, ‘আমি আর্জেন্টিনার সমর্থক আছি এবং থাকব। বর্তমান দলটি পূর্বের তুলনায় ভালো। তাই আশা করছি এবার আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ জিতবে। আমি গতকাল (শুক্রবার) অটোরিকশা রং করেছি। যাত্রীরা বিষয়টিকে অনেক ভালো বলছেন। তবে বিপক্ষ দলের সমর্থকরা এটাকে হয়তো ভালো চোখে দেখবেন না, এটাই স্বাভাবিক।’

বিশ্বকাপের আগেই আর্জেন্টিনা দলের জার্সি কিনে ওই জার্সি পরে অটোরিকশায় যাত্রী পরিবহন করবেন বলে জানান আশরাফুল। তিনি বলেন, ‘অটোরিকশা রং করতে প্রায় পাঁচ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। দুই এক দিনের মধ্যে টাকা জোগাড় করে জার্সি কিনব।’

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট