বৃহস্পতিবার   ২৫ এপ্রিল ২০২৪ || ১১ বৈশাখ ১৪৩১

প্রকাশিত: ০৬:৩৪, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩

সূর্যমুখী ফুলের রাজ্যে পর্যটকদের ভিড়

সূর্যমুখী ফুলের রাজ্যে পর্যটকদের ভিড়

এ যেন সূর্যমুখী ফুলের রাজ্য। যতদূর চোখ যায়; ততদূর হলুদ রঙের ঝলকানি দেখা যায়। বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে সবুজের মাঝে হলুদের সমাহার। সূর্যমুখী যেন সূর্যের দিকেই মুখ করে থাকে। আর এমন মনোরম দৃশ্য দেখতে পর্যটকরা প্রতিদিনই ভিড় করছেন।

মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপি বিএডিসি ফার্মে এখন শোভা পাচ্ছে ফুটন্ত ‘সূর্যমুখী’ ফুল। ফার্মের সূর্যমুখী ফুলের রাজ্যে প্রতিনিয়তই  হুমড়ি খেয়ে পড়ছে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা হাজারো প্রকৃতি প্রেমী। মনোরম সুন্দর পরিবেশ, উন্নত যাতায়াত ব্যবস্থা ও শহরের নিকটবর্তী হওয়ায় এমন দৃশ্য দেখাকে হাতছাড়া করেত চাইছেন না প্রকৃতি প্রেমীরা। সেই সঙ্গে নানা বয়সী সৌন্দর্যপিপাসু মানুষের সেলফি, গ্রুপ ছবি তো আছেই। সবুজ মাঠের এই হলুদ রং ছবিতে এনে দিচ্ছে নতুন মাত্রা।

সূর্যমুখী ফুলের অপরুপ এই সৌন্দর্যের দেখার জন্য আমঝুপি (বিএডিসি) ডাল ও তৈল ভিত্তি বীজ উৎপাদন খামারে প্রতিদিনই আসছে শত শত দর্শনার্থী। বীজের ও ভোজ্য তেলের চাহিদা মেটানোর জন্য সূর্যমুখীর চাষ করেছে মেহেরপুরের আমঝুপি ডাল ও তৈল ভিত্তি বীজ উৎপাদন খামার । সেখানে বীজ উৎপাদনের লক্ষ্যে বিগত কয়েক বছরের ন্যায় এবারও সাড়ে ১৬-বিঘা জমিতে বারি সূর্যমুখী-৩ জাতের সূর্যমুখীর চাষ হয়েছে।

ঘুরতে আসা দর্শনার্থীরা বলেন, কাজের ফাঁকে একটু বিনোদন নিতে সপরিবারে ফুলের রাজ্যে আসা। হলুদ রং মানুষকে সব সময়ই আকর্ষণ করে। কাজের ফাঁকে পরিবারকে সময় দেওয়া হয় না খুব একটা তাই হলুদের সাথে বিকেলটা পরিবারের সাথে কাটাতে পেরে অনেক ভালো লাগলো। প্রকৃতির সাথে হলুদ মিলে একাকার এক নজরকাড়া দৃশ্য দেখতে পারলাম। আমাদের কাছে ভালো লাগে তাই পরিবারকে নিয়ে হলুদের রাজ্যে আসা। খোলামেলা পরিবেশ উপড়ে নীল আকাশের সাথে প্রকৃতির সাথে হলুদ মিলে একাকার এক নজরকাড়া দৃশ্য দেখতে পারলাম।

জাগ্রত জয়পুরহাট

সর্বশেষ

জনপ্রিয়