• মঙ্গলবার   ২৪ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৯

  • || ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

জাগ্রত জয়পুরহাট

জনগুরুত্ব প্রস্তাবে সায় সরকারের

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ২০ জানুয়ারি ২০২২  

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন প্রতিরোধসহ সংক্রমণ রোধে জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) সর্বোচ্চ সতর্কতার সঙ্গে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। পাশাপাশি বনভূমি থেকে দখলদার উচ্ছেদ ও অবৈধ ইটভাটা বন্ধে উদ্যোগ নিতে বলা হয়েছে। রমজান মাস সামনে রেখে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে কঠোর মনিটরিং করতেও বলা হয়েছে ডিসিদের।

গতকাল রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের বিভিন্ন অধিবেশনে উল্লিখিত নির্দেশনা দেন সরকারের নীতিনির্ধারকরা। তারা দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ঢাকায় আসা কৃষিপণ্যের ট্রাকে চাঁদাবাজি বন্ধে ডিসিদের সহযোগিতা চেয়েছেন। পাশাপাশি সার চোরাচালান বন্ধসহ স্বল্প ও নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য উপজেলা পর্যায়ে ওএমএস কর্মসূচি চালুর উদ্যোগ নিতে বলেছেন। এ ছাড়া পরিবেশ রক্ষায় পলিথিনের ব্যবহার বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য বলা হয়েছে।

সম্মেলনে অংশ নেওয়া একাধিক ডিসি বলেছেন, ‘এবারের সম্মেলনে জনস্বার্থসংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ প্রস্তাবগুলো আমলে নিচ্ছে সরকার। এসব প্রস্তাব কার্যকর হলে সরকারের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে এবং জনগণের হয়রানি কমবে।’সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন সরকারের ১২টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কার্য-অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। এসব অধিবেশনে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, উপদেষ্টা, প্রতিমন্ত্রী, সচিব ও দফতর-প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন। অধিবেশন শেষে সন্ধ্যায় ডিসিদের সঙ্গে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। এ সময় তাঁরা ডিসিদের বিভিন্ন বিষয় মনোযোগসহকারে শোনেন এবং তাদের উদ্দেশে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন বলে একাধিক ডিসি জানান।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় : জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত অধিবেশন শেষে মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কে এম আলী আজম সাংবাদিকদের বলেন, ‘ওমিক্রন খুব বেশি ছড়াচ্ছে। ডিসিরা আগে যেমন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন, এখনো সর্বোচ্চ সতর্ক থেকে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে জেলা পর্যায়ে যাতে সব কার্যক্রম পরিচালিত হয় সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। বিভাগীয় পর্যায়ে সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য হাসপাতাল করতে প্রধানমন্ত্রী নীতিগত সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। এর কার্যক্রম চলমান আছে।’ জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে প্রশাসন কর্মকর্তাদের অংশ নেওয়ার প্রস্তাবের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ইউএন মিশনের বিষয়টি নির্ভর করে যে দেশে ইউএন মিশন যাবে এবং সেখানে ইউএনের পক্ষ থেকে চাহিদার ওপর ভিত্তি করে।

এ বিষয়ে আমাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে পত্র দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ ছাড়া জেলা পর্যায়ে পরিকল্পনা উন্নয়ন শাখা গঠনে আইএমইডি অনুরোধ জানিয়েছে। স্বল্প সময়ে গঠন করতে চাইলে বর্তমান জনবলকাঠামো দিয়েই শাখা গঠনের জন্য ডিসিদের বলেছি।’ তৃতীয় শ্রেণির সব ধরনের পদে নিয়োগের জন্য সিলেকশন বোর্ড গঠনে ডিসিদের প্রস্তাবের বিষয়ে জানতে চাইলে সচিব বলেন, ‘তৃতীয় শ্রেণির সব ধরনের পদে নিয়োগের জন্য সিলেকশন বোর্ড গঠন করা আছে। কোনো বিভাগের কেন্দ্রীয় পর্যায়ের নিয়োগ ছাড়া আঞ্চলিক পর্যায়ে তৃতীয় শ্রেণির যেসব নিয়োগ হবে তা বিভাগীয় সিলেকশন বোর্ড করবে।’

পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় : বনভূমি থেকে দখলদার উচ্ছেদ ও অবৈধ ইটভাটা বন্ধে উদ্যোগ নিতে ডিসিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন। নিজ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত কার্য-অধিবেশন শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘পরিবেশ সুরক্ষার জন্য টিলা কাটা, পাহাড় কাটা, বৃক্ষনিধন- এগুলো বন্ধে উনারা (ডিসি) প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। বনভূমি যাতে কোনো অবৈধ দখলদার দখল করতে না পারে এবং অবৈধ ইটভাটা বন্ধের বিষয়ে আমরা তাদের সহযোগিতা চেয়েছি। প্রাণী সংরক্ষণ ও জীববৈচিত্র্যের কথাও তাদের বলেছি। সব ক্ষেত্রে ডিসিদের সার্বিক সহযোগিতা চেয়েছি। দখল হওয়া বনভূমি উদ্ধারে ডিসিদের চিঠি দিয়েছি। আমরা ইটের পরিবর্তে ব্লক প্রস্তুত করার জন্য পরিকল্পনা নিয়েছি। ২০২৫ সালের মধ্যে সরকারি স্থাপনায় শতভাগ ব্লক ইট ব্যবহারের প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। আমরা যখন শতভাগ ব্লকে যাব তখন এমনিতেই ইটভাটা বন্ধ হয়ে যাবে।’

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় : রমজান মাস সামনে রেখে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে কঠোরভাবে মনিটরিং করতে ডিসিদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। নিজ মন্ত্রণালয়ের অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি আরও বলেন, ‘ডিসিদের বলেছি সামনে রমজান মাস, কিছু কিছু জিনিসের দাম আমরা ঠিক করে দিই। সেগুলো কঠোরভাবে তদারকি করতে হবে। সে সময় যেন তারা খুব শক্ত ভূমিকায় থাকেন, আইনগত ব্যবস্থা নেন। কোরবানির সময় চামড়া কেনাবেচার বিষয়টি যেন তদারকি করেন। কেউ যাতে ন্যায্য দাম থেকে বঞ্চিত না হন। মফস্বল থেকে আসা জিনিসপত্র নিয়ে কেউ যেন চাঁদাবাজিতে ক্ষতিগ্রস্ত না হন, দাম যাতে না বাড়ে, মধ্যস্বত্বভোগী যাতে কমিয়ে আনা যায়, কৃষক যাতে ন্যায্য দাম পায় এসব ব্যাপারে তাদের সঙ্গে কথা হয়েছে।’

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় : পলিথিনের ব্যবহার বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য ডিসিদের নির্দেশ দিয়েছেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী। নিজ মন্ত্রণালয়ের অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘বিশ্বে পাটের ব্যবহার বেড়েছে। পাশাপাশি পলিথিনও বেড়েছে। এ বিষয়ে ডিসিদের ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য বলা হয়েছে, যাতে পলিথিনের ব্যবহার বন্ধ হয়। এ ছাড়া ১৯টি পণ্যে পাটের ব্যাগ ব্যবহার বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। তা ঠিকমতো মানা হচ্ছে কি না সে বিষয়েও ভ্রাম্যমাণ আদালত চালাতে ডিসিদের অনুরোধ করা হয়েছে।’

খাদ্য মন্ত্রণালয় : শুল্ক কমিয়ে বেসরকারিভাবে চিকন চাল আমদানির প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়ছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধনচন্দ্র মজুমদার। ডিসি সম্মেলনের অধিবেশন শেষে তিনি সাংবাদিকদের আরও বলেন, ‘গত বছরের মতো এবারও চালের দাম ঊর্ধ্বমুখী। প্রতি কেজি মোটা চালের দাম ৫০ টাকায় পৌঁছে গেছে। চালের বাজারের লাগাম টানতে গত বছরও শুল্ক কমিয়ে চাল আমদানি করেছিল সরকার। ওই সময় ৪১৫ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ১৬ লাখ ৯৩ হাজার টন সেদ্ধ ও আতপ চাল আমদানির অনুমতি দিলেও মাত্র ৩ লাখ টনের মতো চাল আমদানি হয়েছিল। এবারও শুল্ক কমিয়ে বেসরকারিভাবে চিকন চাল আমদানির প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমরা পাঠিয়েছি।’ এ ছাড়া ডিসিদের প্রস্তাব অনুযায়ী আগামী বৃহস্পতিবার থেকে উপজেলা পর্যায়ে ১ হাজার ৭৬০ জন ডিলারের মাধ্যমে ওএমএসে চাল ও আটা বিক্রি শুরু হবে বলেও জানান খাদ্যমন্ত্রী।

কৃষি মন্ত্রণালয় : দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ঢাকায় আসা কৃষিপণ্যের ট্রাকে চাঁদাবাজি বন্ধে ডিসিদের সহযোগিতা চেয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেছেন, ‘সারা পৃথিবীতেই মধ্যস্বত্বভোগী আছে। এটাকে কীভাবে কমানো যায়, প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়েছি। প্রত্যেক ডিসি বলেছেন তারা দায়িত্ব নেবেন।’ তাঁর মন্ত্রণালয়ের অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘ক্যাবিনেট সচিব বলেছেন তাঁরা একটি গবেষণা আমাদের সঙ্গে করবেন- একটি ট্রাক ঈশ্বরদী বা দিনাজপুর থেকে যে এলো, এটি ঢাকায় এসে অ্যাকচুয়ালি কত দাম পেল। দিনাজপুরে কিংবা ঈশ্বরদী কিংবা সাতক্ষীরায় চাষিরা মাঠ পর্যায়ে ফসল বিক্রি করে ১৫ টাকা পাচ্ছে প্রতি কেজিতে। ঢাকায় এসে সেটা কেন ৪০-৪৫ টাকা হবে? এটা হলো মধ্যস্বত্বভোগী বা ফড়িয়া। ট্রাকের খরচ বা কোথাও চাঁদাবাজির শিকার যদি তারা হয়ে থাকে, তাহলে কত টাকা কোথায় দিল? সেটা আমরা বের করব। তারপর আমরা চেষ্টা করব জাতীয় পর্যায়ে একটি ব্যবস্থা নিতে, যাতে এটি বন্ধ করা যায়।’

শিল্প মন্ত্রণালয় : সার চোরাচালান রোধের পাশাপাশি ডিলারদের কাছ থেকে অসাধু ব্যবসায়ীরা যাতে সার নিতে না পারে তা তদারক করতে ডিসিদের নির্দেশ দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন। ডিসি সম্মেলনের অধিবেশন শেষে তিনি বলেন, ‘দেশে যে সার উৎপন্ন হয় তা যথেষ্ট নয়। এজন্য সার আমদানি করতে হয়। যে টার্গেট আছে ফুলফিল হয়েছে। এখন বাফার স্টকও আছে। শর্টেজের কোনো সম্ভাবনা নেই। বোরো মৌসুমের জন্য দেশে সব ধরনের সারের পর্যাপ্ত মজুদ আছে। সংকটের গুজব ছড়িয়ে কেউ কেউ দাম বাড়ানোর চেষ্টা করছে, ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।’

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় : গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের এককালীন অর্থ বরাদ্দ চেয়েছেন ডিসিরা। তবে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এ প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছে। নিজ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত অধিবেশন শেষে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, ‘আলোচনার সময় ডিসিরা প্রস্তাব রেখেছেন গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য আমরা এককালীন অর্থ বরাদ্দ দিতে পারি কি না। আমরা সেখানে দ্বিমত পোষণ করেছি। আমরা বলেছি দুই বা তিন কিস্তিতে দিলে কাজের গতি ঠিক থাকে। কাজের মনিটরিং ভালো হয়, ফল ভালো হয়।’

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট