• শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯

  • || ১৪ মুহররম ১৪৪৪

জাগ্রত জয়পুরহাট

সহজেই টিকিট পাচ্ছেন কমিউটার ট্রেনের যাত্রীরা

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ৭ জুলাই ২০২২  

আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে মানুষের ভিড় চোখে পড়ার মতো। আজ (৭ জুলাই) ঈদযাত্রা তৃতীয় দিন চলছে। রাজধানী ছাড়ছে শত শত মানুষ। এদিকে কমিউটার ট্রেনগুলোতে ঈদযাত্রায় অগ্রিম টিকিট দেওয়া হয় না। যওয়ার আগে তাদের টিকিট কেটে ট্রেনে উঠতে হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, আজ সকাল থেকে কমিউটার ট্রেনের টিকিটের জন্য দীর্ঘ লাইনে অপেক্ষা করছে যাত্রীরা। সকাল সাড়ে ৯টায় কমিউটার ট্রেন কমলাপুর স্টেশন ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও ভোর থেকেই টিকিটের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। তবে টিকিট দেওয়া শুরু হওয়ার পর কম সময়ের মধ্যে যাত্রীরা হাতে টিকিট পেয়ে যাচ্ছেন। তবে যাত্রীদের অভিযোগ টিকিট দেওয়া হলেও সিট নম্বর দেওয়া হচ্ছে না।

তিতাস কমিউটার ট্রেনের কাউন্টার এলাকায় কথা হয় ভৈরবের যাত্রী আহমেদের সঙ্গে। পেশায় তিনি সবজি বিক্রেতা। প্রায় দুই ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে টিকিট পেয়েছেন তিনি। আহমেদ বলেন, আমরা আজ পরিবার নিয়ে গ্রামে ঈদ করতে যাচ্ছি। দোকানের সামনে (কমলাপুর বালুর মাঠ) কোরবানির পশুর হাট বসেছে। বেচাকেনা নেই তাই গ্রামে চলে যাচ্ছি। ঈদের পর আবার কমিউটার ট্রেনযোগে ঢাকায় ফিরবো।

টিকিটের জন্য অপেক্ষা করছেন তিতাস কমিউটারের মেথিকান্দার যাত্রী রাসেল মাহমুদ। হাতে খুচরা ৪০ টাকা (ট্রেন ভাড়া) ধরে রেখেছেন। তিনি বলেন, আমাদের ঈদযাত্রায় অগ্রিম টিকিট দেওয়া হয় না। যেদিন ট্রেন ছাড়বে সেদিনই টিকিট বিক্রি করে। আমি আজই বাড়ি যাবো, ট্রেন সাড়ে ৯টায়। আমি সকাল পৌনে ৮টার দিকে চলে এসেছি। সবাই টিকিট পায় তবে সিট নম্বর দেওয়া হয় না। যে যার মতো ট্রেনে উঠে সিট নিতে হয়।

সকাল থেকেই চতুর্থ দিনের মতো আন্তঃনগর ট্রেনযোগে ঈদযাত্রা শুরু হয়েছে। এবার শুক্রবার (১ জুলাই) থেকে ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। ১ জুলাই দেওয়া হয় রেলের ৫ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট, ২ জুলাই দেওয়া হয় ৬ জুলাইয়ের টিকিট, ৩ জুলাই দেওয়া হয় ৭ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট, ৪ জুলাই দেওয়া হয় ৮ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট এবং ৫ জুলাই দেওয়া হয় ৯ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট।

এছাড়া ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) থেকে। আজ দেওয়া হচ্ছে ১১ জুলাইয়ের ফিরতি টিকিট। শুক্রবার (৮ জুলাই) দেওয়া হবে ১২ জুলাইয়ের টিকিট, ৯ জুলাইয়ের ১৩ জুলাইয়ের টিকিট, ১১ জুলাই ১৪ এবং ১৫ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি হবে। এর মধ্যে ১০ জুলাই ঈদ হলে ১১ জুলাই সীমিত কয়েকটি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করবে। তবে ১২ জুলাই থেকে সব ট্রেন চলাচল করবে।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট