• মঙ্গলবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৯

  • || ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাগ্রত জয়পুরহাট

৩ অক্টোবরের মধ্যে টিকা নেয়ার আহ্বান স্বাস্থ্যের ডিজির

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২  

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) থেকে শুরু হয়েছে করোনাভাইরাস টিকাদান কর্মসূচির বিশেষ ক্যাম্পেইন। এই ক্যাম্পেইনের পর আর প্রথম ডোজ দেওয়া হবে না। এ জন্য বাদ পড়াদের আগামী ৩ অক্টোবরের মধ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিতে হবে। বুধবার দেশজুড়ে এই টিকাদান কর্মসূচি শুরু উপলক্ষে স্বাস্থ্য অধিদফতরের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান তিনি।

তিনি বলেন, আমরা ৯৭ শতাংশ জনসংখ্যাকে প্রথম ডোজ এবং ৯০ শতাংশকে দ্বিতীয় ডোজ দিয়ে লক্ষ্য অর্জন করেছি। অবশিষ্ট ভ্যাকসিনের মেয়াদ শিগগিরই শেষ হয়ে যাবে। তাই ৩ অক্টোবরের পর আমরা প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ ক্যাম্পেইন চালাতে পারবো না। অক্টোবরের পর থেকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া বন্ধ থাকবে এবং শুধুমাত্র বুস্টার ডোজ দেওয়া চলবে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক বলেন, যেহেতু সাম্প্রতিক সময়ে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে, তাই যারা টিকা নেননি তারা টিকা নিয়ে নিন। কোভিড-১৯ প্রতিরোধে মোট জনসংখ্যার ৭০ শতাংশকে তিনটি ডোজ দিয়ে টিকা দেওয়ার লক্ষ্য ছিল সরকারের। এরমধ্যে জনসংখ্যার প্রায় ৪১ শতাংশ প্রত্যেকে বুস্টার ডোজ পেয়েছে।

টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হবে কিনা প্রশ্নে অধ্যাপক খুরশীদ আলম বলেন, এখনো কোনো পরিকল্পনা হয়নি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনো নির্দেশনা দেয়নি। যেসব দেশে চতুর্থ টিকা দেওয়া হচ্ছে তারা নিজ দেশের প্রটোকল মেনে এটা দিচ্ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা যদি নির্দেশ দেয় তাহলে তখন সেটা করা হবে।

এদিকে, ১১ অক্টোবর থেকে ৫-৬ বছর বয়সী শিশুদের টিকার বিশেষ ক্যাম্পেইন শুরু হবে। উপজেলাপর্যায়ে এ ক্যাম্পেইন সম্প্রসারিত করা হবে বলেও জানান অধ্যাপক খুরশীদ আলম। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক আহমেদুল কবির, জাতীয় কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ডিপ্লয়মেন্ট টাস্কফোর্স কমিটির সদস্য সচিব ডা. শামসুল হক এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের অন্যান্য কর্মকর্তারা।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট