মঙ্গলবার   ২৮ মে ২০২৪ || ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ১১:২৭, ১১ এপ্রিল ২০২৪

আজ ঈদ, মুসলমানদের ঘরে আনন্দের বন্যা

আজ ঈদ, মুসলমানদের ঘরে আনন্দের বন্যা
সংগৃহীত

শুভ্র পাঞ্জাবি, টুপিতে লোকে লোকারণ্য। কাঁধে জায়নামাজ, হাতে তসবি। বাহারি রঙে, ঢঙের টুপি। হাসিমুখে কোলাকুলি, করমর্দন। একে অপরে নিজের বাড়িতে টেনে নেওয়ার দিন আজ। সবাইকে আনন্দে একাকার করতে আবার এসেছে ঈদ। দীর্ঘ এক মাস রোজা পালনের পর ইসলাম ধর্মাবলম্বীরা সবচেয়ে বড় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর পালন করছেন আজ। ঈদ মোবারক।

দীর্ঘ এক মাস রোজা রাখার পর শাওয়াল মাসের এক তারিখে এর সমাপ্তি ঘটানো হয়, তাই এর নাম ঈদুল ফিতর। আজ সারাদেশে পালিত হচ্ছে ঈদুল ফিতর। এ উপলক্ষে মুসলমানদের ঘরে ঘরে বইছে আনন্দের বন্যা। এ দিনে রোজা রাখা নিষিদ্ধ। দিনটিতে আল্লাহর নেয়ামতের স্বাদ গ্রহণ করা অবশ্যপালনীয়। এই দিনের সবার মনের অজান্তেই মুখে গুণগুণিয়ে চলে আসে ‘ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ...’।    

আজ (বৃহস্পতিবার) সকালে সারাদেশের মুসলমানরা ঈদগাহ ও মসজিদে ঈদুল ফিতরের দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ আদায় করবেন। ঈদের কারণে বহুদিন পর প্রিয়জনকে কাছে পেয়ে গ্রামে থাকা পরিজনরা উচ্ছ্বাসে ভাসছেন। নতুন পোশাক পরে ঈদের পুরো দিনই চলবে একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি। বেড়াতে যাবেন একে অপরের বাড়ি, করাবেন মিষ্টিমুখ। ছোটরা নতুন পোশাক পরে বড়দের কাছ থেকে সালামি আদায়ে তৎপর থাকবে সারাদিন।

মুসলমানদের প্রধান দুটি ধর্মীয় উৎসবের একটি ঈদুল ফিতর। ঈদ অর্থ আনন্দ। আর ফিতর বলতে রোজার সমাপ্তি, বা স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসা। রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের মাস মাহে রমজান শেষে আসে ঈদুল ফিতর। যারা রমজানে রোজা রেখেছেন তাদের জন্যই ঈদ খুশির বার্তা নিয়ে আসে। যারা মাসটিকে কাজে লাগাতে সক্ষম হন, আল্লাহ রব্বুল আলামিন তাদের নিয়ে গর্ব করেন।

মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইরশাদ করেন, রমজানের শেষে মুমিন বান্দারা যখন তাকবির পাঠ করতে করতে ঈদগাহের উদ্দেশে রওয়ানা হন, আল্লাহ তায়ালা তখন ফেরেশতাদের বলেন, যে বান্দা তার কর্তব্য সম্পন্ন করে, তার প্রতিদান কী হওয়া উচিত? 

ফেরেশতারা বলেন, তার প্রতিদান পূর্ণ মাত্রায় দেওয়া উচিত। আল্লাহ তায়ালা বলেন, আমার বান্দারা তাদের ওপর আরোপিত কর্তব্য পালন করে এখন আমার মহিমা ঘোষণা করতে করতে বের হয়েছে। আমি আমার মর্যাদা ও প্রতিপত্তির শপথ করে বলছি, তাদের দোয়া অবশ্যই কবুল করব। তারপর আল্লাহ ঘোষণা করেন, তোমরা ফিরে যাও। আমি তোমাদের পাপগুলো ক্ষমা করে দিলাম। আর তোমাদের পাপরাশিকে সওয়াবে পরিণত করলাম। (বায়হাকি)

এদিকে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে টানা পাঁচদিন সরকারি ছুটি চলছে। বুধবার থেকে শুরু হয়েছে ছুটি, আগামী রোববার পর্যন্ত ছুটি কাটাবেন সরকারি কর্মচারীরা। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলাদা বাণীতে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ও মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ ও সমৃদ্ধি কামনা করেছেন।

প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে নাড়ির টানে রেল, সড়ক, ও নৌপথে রাজধানী ছেড়েছেন অসংখ্য মানুষ। তাই রাজধানী এখন অনেকটাই ফাঁকা। 

ঈদ উপলক্ষে গুরুত্বপূর্ণ সরকারি আধা সরকারি ভবনসমূহে আলোকসজ্জা করা হয়েছে। ঈদের দিন দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, আশ্রয়কেন্দ্র, ভবঘুরে কল্যাণ কেন্দ্র ও দুস্থ কল্যাণ কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে।

 

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়