শনিবার   ২২ জুন ২০২৪ || ৭ আষাঢ় ১৪৩১

প্রকাশিত : ০৫:৪৯, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

কেন কার্ড ছাপিয়েও ভেঙে গিয়েছিল সালমান-সংগীতার বিয়ে?

কেন কার্ড ছাপিয়েও ভেঙে গিয়েছিল সালমান-সংগীতার বিয়ে?

বলিউড তারকা সালমান খানের জীবনের অন্যতম চর্চিত নাম সোমি আলি। যার সাথে একসময় প্রেমের সম্পর্কে ছিলেন সালমান, যদিও পরবর্তীতে ভেঙে যায় সেই সম্পর্ক। ইতোপূর্বেই সালমানকে ঘিরে একাধিক বিষ্ফোরক তথ্য ফাঁস করেছেন সোমি।

আর এবার তিনি ফাঁস করলেন কীভাবে বিয়ের কার্ড ছাপানো হয়ে যাওয়ার পরেও বিয়ের এক মাস আগে ভেঙে যায় সালমান ও তার আরেক প্রাক্তন সংগীতা বিজলানির বিয়ে।

ফিল্ম ক্যারিয়ারের একদম শুরুর দিকে বলিপাড়ার এক নায়িকার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন সালমান। যিনি আর কেউ নন, অভিনেত্রী সংগীতা বিজলানি। ৮ বছরের সম্পর্কের পর তারা বিয়ের সিদ্ধান্তও নিয়ে ফেলেছিলেন, এমনকি বিয়ের কার্ড পর্যন্ত ছাপা হয়ে গিয়েছিল তাদের। কিন্তু বিয়ের এক মাস আগে তা ভেঙে যায়। যার নেপথ্যে কারণ নাকি পরকীয়া।

মূলত অন্য এক উঠতি অভিনেত্রীর সঙ্গে সালমানকে হাতেনাতে ধরে ফেলেছিলেন সংগীতা, তাও আবার ফ্ল্যাটের বন্ধ ঘরে। আর সেই উঠতি নায়িকাই ছিলেন সালমানের আরেক প্রাক্তন প্রেমিকা সোমি আলি।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সোমি বলেন, ‘‘আমার ফ্ল্যাটে এসে পড়েন সংগীতা। হাতেনাতে ধরেন সালমানকে। সংগীতার সঙ্গে সালমান যা করত পরে আমার সঙ্গেও তাই করেছিল। তখন বুঝিনি। পরে ওই কর্মফল ভোগ করতে হয় আমাকেও।’’

সোমি জানান, সালমানের অভিনয় দেখে নাকি মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। শুধুমাত্র সালমানের জন্যই বলিউডে কাজ করার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। ফ্লোরিডা থেকে চলে আসেন মুম্বাইয়ে। শুধু তাই নয়, সালমানকে মনে মনে বিয়ে করার পরিকল্পনাও করে ফেলেছিলেন সোমি। ১৯৯৪ সালের ২৭ মে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল সালমান এবং সংগীতার। কিন্তু সোমির ব্যাপারে জানার পর এপ্রিল মাসেই বিয়ে ভেঙে দেন সংগীতা।

পরবর্তীতে সোমির সাথেও সালমান প্রতারণা করেছিল বলে দাবি তার। তাই তার সঙ্গে ব্রেকআপ করে আমেরিকায় ফিরে যান সোমি। বর্তমানে তিনি একটি এনজিওতে কর্মরত আছেন।

জাগ্রত জয়পুরহাট

সর্বশেষ

সর্বশেষ