• বৃহস্পতিবার   ০৭ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ২৩ ১৪২৯

  • || ০৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

জাগ্রত জয়পুরহাট

নারী উদ্যোক্তার হাত ধরে আমিরাতে তৈরি হচ্ছে বৈদ্যুতিক গাড়ি

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ২ জুন ২০২২  

সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রথম বারের মতো তৈরি হচ্ছে নিজস্ব ব্র্যান্ডের ইলেকট্রিক গাড়ি। এর প্রধান ভূমিকায় রয়েছেন একজন নারী উদ্যোক্তা। তিনি হলেন এম গ্লোরি হোল্ডিং গ্রুপের চেয়ারম্যান ড. মাজিদা আলাজাজি। তিনি জানান, এই দিনের জন্য আমি অত্যন্ত আনন্দিত। ইলেকট্রিক গাড়ির ইনোভেশন সামিট চলাকালে তিনি খালিজ টাইমসকে বলেন, ইলেকট্রিক গাড়িটির নাম আল দামানি ডিএমভি-৩০০। জুনের শেষের দিকে গাড়ির প্রথম ব্যাচ চালু হবে।

মাজিদা আলাজাজি বলেন, আমরা দুবাই ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিটিতে (ডিআইসি) একটি অস্থায়ী কারখানা স্থাপন করেছি। এর ব্যবস্থাপনা গত বছরের অক্টোবরে শুরু হয়। কয়েক দিনের মধ্যে পুরোদমে উৎপাদন শুরু করা হবে বলেও জানান তিনি।

চলতি বছরের মার্চে মাজিদা অন্যান্য শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ডিআইসিতে দেশের প্রথম বৈদ্যুতিক যানবাহন উৎপাদন সুবিধার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। কারখানাটি ২০২৪ সালের মধ্যে তাদের কার্যক্রম শেষ করবে। এদিকে ডিএমভি-৩০০ গাড়িটি একটি অস্থায়ী কারখানায় তৈরি করা হবে, যা ডিআইসিতে নির্মিত হতে যাওয়া মূল কারখানা থেকে স্বল্প দূরত্বে অবস্থিত।

তিনি বলেন, আমরা দল ও আমি এর পিছনে ছিলাম। দল নির্বাচনে খুবই সতর্ক ছিলাম। অ্যাস্টন মার্টিন, জেনারেল মোটরস মতো অন্যান্য শীর্ষ সংস্থাগুলো থেকে সেরা ও সবচেয়ে প্রতিভাবান ব্যক্তিদের বাচাই করে দলে নেওয়া হয়েছে। আমিরাতের প্রথম নারী হিসেবে মাজিদা ইউএই ইউনিভার্সিটি থেকে সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট ও ম্যানুফ্যাকচারিংয়ে ব্যবসায় প্রশাসনে ব্যবহারিক ডক্টরেট করেন।

এই নারী উদ্যোক্তা বলেন ২০১২ সালে থেকে আমি স্যান্ডস্টর্ম তৈরি করতে শুরু করেছি। এটি এখন একটি সফল কারখানা। আমরা এখন এম গ্লোরি দিয়ে ইলেকট্রিকের দিকে যাচ্ছি। এম গ্লোরি হোল্ডিং গ্রুপের অধীনে আরও টেকসই প্রকল্প করার পরিকল্পনা করার কথাও জানান মাজিদা।বৈদ্যুতিক গাড়িটি ১৬০ কিলোমিটারের সর্বোচ্চ গতি স্পর্শ করতে পারে ও একবার চার্জে ৪০৫ কিলোমিটারের বেশি পথ চলতে পারবে।

শিল্প প্রকৌশলী বলেন, গাড়িটি বাড়িতে চার্জ করতে ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা লাগবে। কিন্তু দ্রুত চার্জ দেওয়ার ব্যবস্থাও রয়েছে, যার মাধ্যমে ৩০ মিনিটে ৮৫ শতাংশ পর্যন্ত চার্জ দেওয়া যায়। আমরা আমাদের নিজস্ব চার্জার তৈরি করার জন্য কাজ করছি, যার মাধ্যমে ৪ ঘণ্টার মধ্যে সম্পূর্ণ চার্জ দেওয়া সম্ভব হবে। গাড়ির যন্ত্রাংশের প্রায় ২৫ শতাংশ স্থানীয় বাজারের। এরই মধ্যে বৈদ্যুতিক গাড়ির জন্য কয়েক হাজার মানুষ অগ্রিম অর্ডার দিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, অস্থায়ী কারখানায় থেকে দৈনিক ৮ থেকে ১০টি গাড়ি ও বছরে ১০ হাজার গাড়ি উৎপাদন সক্ষমতা রয়েছে। অন্যদিকে মূল কারখানা থেকে বছরে ৫০ হাজার থেকে ৭০ হাজার গাড়ি উৎপাদন করা সম্ভব।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট