• বুধবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৩ ১৪২৯

  • || ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাগ্রত জয়পুরহাট

চাঁদপুরে বাণিজ্যিকভাবে লন কার্পেট ঘাস চাষে রাব্বির বাজিমাত!

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ২৮ আগস্ট ২০২২  

চাঁদপুরে পতিত জমিতে বাণিজ্যিকভাবে লন কার্পেট ঘাস চাষ করে সফল হয়েছেন গোলাম রাব্বি। অফিস বা বাড়ির আঙিনার সৌন্দর্য বর্ধনের জন্য দিন দিন কার্পেট ঘাসের চাহিদা ও জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

জানা যায়, চাঁদপুর শহরের পুরানবাজার লোহারপুল এলাকার গোলাম রাব্বি বিদেশ থেকে ফেরত এসে প্রথমে ৪০ শতাংশ জমিতে এই কার্পেট ঘাসের চাষ শুরু করেন। বর্তমানে ৫ একর জমিতে কার্পেট ঘাস চাষ করছেন। তার এই ঘাস চাষের কথা চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে চট্টগ্রাম, সিলেট, গাজীপুর, নরসিংদী, বান্দরবান, খাগড়াছড়ি, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জসহ অনেক জেলার আগ্রহী ক্রেতারা কার্পেট ঘাসের জন্য যোগাযোগ করছেন।

গোলাম রাব্বি বলেন, আমি ৭ বছর বাহরাইন ছিলাম। সেখানেই লন কার্পেট ঘাসের চাষ শিখি। বাড়ি বা অফিসের আঙিনায়, বাগানে, কবরস্থানে, পাহাড়ে সৌন্দর্য বাড়াতে ও পরিবেশ রক্ষায় কার্পেট ঘাস ব্যাপকহারে ব্যবহার করা হয়। বাড়ির কাছেই উঁচু জমি খুঁজে বের করে প্রথমে ৪০ শতাংশ জমি ভাড়া নিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে এই ঘাসের চাষ শুরু করি। যখন দেখলাম যে দেশে এই কার্পেট ঘাসের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে তখন আস্তে আস্তে জমির পরিমাণ বাড়াতে থাকি।

তিনি আরো বলেন, বাণিজ্যিকভাবে বিক্রির জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার পর এখন আরো বেশি কার্পেট ঘাস চাষ করতে হচ্ছে। বর্তমানে ৪ স্থানে প্রায় ৫ একর জমিতে এই ঘাস চাষ করছি। ব্যবসা ধীরেধীরে লাভজনক হওয়ায় এখন অনলাইনেই সারা দেশে বিক্রি করছি। এই প্রকল্পে ৪০ জন নিয়মিত কাজ করছেন।

তার ৪ প্রকল্পের পেছনে খরচ হয়েছে প্রায় ১৮ লাখ টাকা। জমি বাবদ ভাড়া দিতে হয় বছরে ৫ লাখ টাকা। গত শনিবার মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক বাংলো ও মুন্সিগঞ্জ ভূমি অফিসের কাছে ৪ হাজার বর্গফুট কার্পেট ঘাস বিক্রি করেছেন। প্রতি বর্গফুট ৮০ টাকা বিক্রি করে।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট