• রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ১১ ১৪২৮

  • || ১৮ সফর ১৪৪৩

জাগ্রত জয়পুরহাট

খাবার ছত্রাকমুক্ত রাখবেন যেভাবে

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ৫ সেপ্টেম্বর ২০২১  

যেসব খাবার একটু পচনশীল, তাতে সহজেই ছত্রাক জমে। বিশেষ করে স্যাঁতসেঁতে আর ভ্যাপসা গরমের কারণে খাবারে ছত্রাক তৈরি হয়। ফলে সেসব খাবার খাওয়ার অনুপযোগী হয়ে পড়ে। সাধারণত পাঁউরুটি, আচার, জ্যাম, কাজুবাদাম, কাঠবাদাম, মাখন, বিস্কুট ইত্যাদি খাবারগুলো সঠিক উপায়ে সংরক্ষণ না করার ফলে দ্রুত ছত্রাক ধরে যায়।

ছত্রাক অনেক ধরনের হয়। তবে দুই ধরনের ছত্রাক বেশি চোখে পড়ে। একধরনের ছত্রাক হয় তুলার মতো সাদা আর অন্য এক ধরনের হয় পলিথিনের মতো খুবই পাতলা প্রলেপের।

ছত্রাক ধরা কোনো খাবার খাওয়া উচিত নয়। ছত্রাক পড়লে পুরো খাবারই ফেলে দিতে হবে। কারণ ছত্রাক খাবারের ভিটামিন, মিনারেল তো নষ্ট করে ফেলে প্রথমেই। ক্রমে সেই খাবারের প্রোটিনও নষ্ট হয়ে যায়। আর ছাতা ধরা খাবার খেয়ে ফেললে পেটের অসুখ, অ্যালার্জি, অন্ত্রের অসুখ ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই চলুন জেনে নেয়া যাক কীভাবে এসব খাবার ছত্রাকমুক্ত রাখবেন-

পিনাট বাটার

বাদামে যেহেতু ছত্রাক পড়ে, তাই পিনাট বাটার ফ্রিজে সংরক্ষণ করতে হবে। মুখ ভালোভাবে বন্ধ করতে হবে, যেন বাতাস না ঢোকে।

বিস্কুট

বিস্কুটের প্যাকেট থেকে বিস্কুট বের না করে সেই সমেত একটি এয়ারটাইট কৌটোতে রাখুন। প্যাকেটে থাকলে চট করে ছত্রাক ধরে না।

স্যান্ডউইচ

স্যান্ডউইচ এমন একটি খাবার, যা চাইলেও ২৪ ঘণ্টার বেশি সংরক্ষণ করা উচিত নয়। স্বাভাবিক ফ্রিজে পাতলা পলিথিন দিয়ে মুড়িয়ে স্যান্ডউইচ এক দিন পর্যন্ত রাখা যায়।

মাখন

মাখন এমনিতেই সব সময় ফ্রিজে রেখে দেওয়া হয়। কিন্তু খোলা ভাবে না রেখে একটি এয়ারটাইট কৌটোতে মাখন রাখুন। ভিজে কিংবা অপরিচ্ছন্ন হাত বা চামচ মাখনে লাগাবেন না।

জ্যাম

দোকান থেকে কেনা জ্যামে ছত্রাক না ধরার উপাদান মেশানো থাকে। জ্যাম ভালো রাখতে তা ফ্রিজে রাখুন। ব্যবহার করেই তা আবার সঙ্গে সঙ্গে ফ্রিজে তুলে দিন, না হলে ছত্রাক ধরতে পারে।

পাঁউরুটি

পাঁউরুটি কেনার সময় তার এক্সপায়ারি ডেট দেখে নিন। ডেট পেরিয়ে যাওয়া পাঁউরুটি খাবেন না। ঘরে পাঁউরুটি তৈরি করলে শুকনো ইস্ট দিয়ে বানান, এতে ছাতা ধরে না। ছত্রাক ধরা এড়াতে ডিপ ফ্রিজে পাঁউরুটি রাখুন।

আচার

আচারের শিশি থেকে আচার বার করার সময় হাতের ব্যবহার করবেন না। চামচ দিয়ে আচার বার করার সময় দেখে নিন, সেটা শুকনো কি না। কারণ অপরিষ্কার হাত, ভিজে ভাব ও ঘাম আচারে মিশলে ছত্রাক ধরার প্রবণতা বাড়ে। আচার ভালো রাখতে কাচের শিশিতে রাখুন ও নিয়মিত রোদে দিন।

সবজি ও ফলমূল

স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়ায় খাদ্যদ্রব্য ছাড়াও সবজি-ফলমূলে ছত্রাকে আক্রান্ত হতে পারে। তাই আর্দ্র মৌসুমে এসবের ওপর বাড়তি খেয়াল রাখা চাই। সবচেয়ে ভালো হয় সবজিগুলো খবরের কাগজে মুড়ে রাখলে। এই কাগজ সবজি থেকে পানি শুষে নিয়ে আর্দ্রতা কমাবে। এরপর কাগজ থেকে বের করে সবজিগুলো জিপ-লক ব্যাগে সংরক্ষণ করা যেতে পারে। এতে ছত্রাকের হাত থেকে খাদ্যদ্রব্যকে সুরক্ষা সম্ভব হবে।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট