• বুধবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৩ ১৪২৯

  • || ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাগ্রত জয়পুরহাট

অফিস ডেস্কে গাছ থাকলে মানসিক প্রশান্তি মেলে

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ৮ আগস্ট ২০২২  

আমরা যারা কর্মজীবী তাদের দিনের প্রায় অর্ধেকের বেশি সময় কেটে যায় অফিসে। সারা দিনের কর্মব্যস্ত জীবনে আমরা মাঝেমধ্যেই হাঁপিয়ে উঠি। তাই অফিসের টেবিলে একটি সবুজ গাছ থাকলে শরীর, মন প্রফুল্ল ও চাঙ্গা থাকে। তাই অফিস ডেস্কে এমন গাছ রাখতে হবে যা এই পরিবেশে খাপ খেয়ে বেঁচে থাকতে পারে। অফিসের সিঁড়ি বা বারান্দায়ও রাখা যেতে পারে পছন্দের গাছ। এমন গাছ রাখতে হবে, যেগুলো খুব সহজেই মানিয়ে যায় এ ছোট জায়গাগুলোতে আরো বাড়িয়ে দেয় সৌন্দর্য।

অফিসের কাজের চাপে যখন ক্লান্ত হয়ে পড়ি তখন, ডেস্কে গাছ রাখার পাশাপাশি আরো কিছু পদ্ধতি জেনে রাখা প্রয়োজন। যেগুলো আমাদের খুব সহজেই অবসন্নভাব কাটিয়ে চাঙ্গা করে তুলবে ও কাজের গতি বাড়বে।

আসুন জেনে নেই কিছু টিপস
দীর্ঘক্ষণ ডেস্কে বসে কাজ না করে কিছুক্ষণ পর পর হেঁটে পাশের সহকর্মীদের খোঁজখবর নিন। ছোট ছোট কাজে সাহায্যকারী না ডেকে নিজেই উঠে যান। যেমন কোনো কিছু ফটোকপি করতে হলে ডেস্ক থেকে গিয়ে নিজেই নিয়ে আসুন।

কাজের ফাঁকে মাঝেমাঝে ব্রেক নিন। চা পান করুন, সহকর্মীদের সঙ্গে গল্প করুন। নতুন করে কাজের উৎসাহ পাবেন। অফিসের চেয়ারে সব সময় শিরদাঁড়া সোজা রেখে বসুন। কম্পিউটার স্ক্রিনে একটানা ১০ থেকে ১৫ মিনিটের বেশি তাকিয়ে থাকবেন না। কম্পিউটারে কাজ করার সময় নিয়মিত চোখের পাতা ফেলুন। কম্পিউটার শরীর থেকে এক হাত দূরে, আই লেভেলের একটু নিচে সেট করুন।  

অফিসেই হালকা কিছু ব্যায়াম করতে পারি আমরা
হাত দুটো সামনের দিকে সোজা বাড়িয়ে দিন, এক হাত দিয়ে অন্য হাতের আঙ্গুলগুলো ধরুন। এবার হাত দুটি আস্তে আস্তে ওপর নিচ করুন। অফিসের চেয়ারে মেরুদণ্ড সোজা করে বসুন। এবার ঘাড় আস্তে আস্তে ডানে বামে ঘোরান। এভাবে ৫ থেকে ১০ বার করুন। পায়ের আঙুলের ওপর ভর করে সোজা হয়ে দাঁড়ান। আস্তে আস্তে এই অবস্থায় পিঠ সোজা রেখে বসার ভঙ্গি করুন। এভাবে পাঁচবার করুন। চেয়ারটা ডেস্ক থেকে খানিকটা দূরে সরিয়ে নিন। হাত দুটো সোজা করে ডেস্ক স্পর্শ করুন ১০ বার।

নিয়মিত এই অল্প সময়ের ওয়ার্ক আউট আমাদের একঘেয়েমি দূর করে কাজে আরো মনযোগী করে তুলবে এবং সুস্থ থাকতে সাহায্য করে।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট