• রোববার   ১৭ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ২ ১৪২৮

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জাগ্রত জয়পুরহাট

সব বাধা পেরিয়ে ক্ষেতলালের বিউটি এখন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১  

জন্ম থেকেই দুটি হাত নেই। তারপরও অদম্য শক্তিকে কাজে লাগিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে তাক লাগিয়েছেন জয়পুরহাটের বিউটি খাতুন। মা-বাবার অক্লান্ত পরিশ্রম আর তার নিজের প্রচেষ্টার মাধ্যমেই এই সফলতা। জীবনের সব বাধা পেরিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়ে তার মতো প্রতিবন্ধীদের পাশে দাঁড়াতে চান বিউটি।

জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার শিবপুর গ্রামের কৃষক বায়োজিদ হোসেন মেয়ে বিউটি খাতুন। জন্ম থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধী সে। তার দুটি হাত নেই। ভাগ্যের নির্মম পরিহাস পৃথিবীর আর সকলের মতো হাত দিয়ে নয়, বরং বিউটিকে সবকিছু করতে হয় পা দিয়ে। মায়ের অনুপ্রেরণায় এমন প্রতিবন্ধকতা জয় করে পা দিয়ে লিখেই জীবন সংগ্রাম চালিয়ে বর্তমানে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) পড়াশুনা করছেন বিউটি। এর আগেও ক্লাস ফাইভে বৃত্তি, জেএসসিতে ও এসএসসিতে গোল্ডেন এ প্লাস অর্জন করেছিল সে।

বিউটি খাতুন জানান, তার স্বপ্ন বড় কোনো চাকরি করে নিজের মতো যারা প্রতিবন্ধী রয়েছে তাদের পাশে দাঁড়ানো।

বিউটি খাতুনের বাবা বায়োজিদ হোসেন জানান, আমার আশা- বড় ছেলে মাস্টার্স পাশ করেছে, মেয়েটাকেও ভালোভাবে পড়াশোনা শেষ করানোর। সেই সাথে সে যেন বড় হয়ে মানুষের সেবা করতে পারে এটাই আমার বড় চাওয়া-পাওয়া।

 

এ ব্যাপারে সু-শাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর জয়পুরহাট জেলার সাধারণ সম্পাদক ও মানবাধিকার কর্মী খোরশেদ আলম দৈনিক অধিকারকে জানান, বিউটির মতো নারীরাই আজ আমাদের দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। সেই সাথে জয়পুরহাটের বিউটি এখন দেশের সকল অভিভাবকদের হতে পারে এক অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত।

এ দিকে, বিউটির এই সাফল্য দেখে দেশের প্রতিবন্ধী নারীরা আরও একধাপ এগিয়ে যাবে- এমনটাই প্রত্যাশা এলাকাবাসীদের।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট