• শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯

  • || ১৪ মুহররম ১৪৪৪

জাগ্রত জয়পুরহাট

আক্কেলপুরে জমে উঠেছে পশুর হাট

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ৭ জুলাই ২০২২  

আগামী ১০ জুলাই কোরবানির ঈদ। এ ঈদকে সামনে রেখে জয়পুরহাটের আক্কেলপুর কলেজ বাজার হাটে ক্রেতা-বিক্রেতার সরব উপস্থিতে এবারের কোরবানির পশুর হাট জমে উঠেছে। তবে গত দিন গুলোতে বৃষ্টির কারণে কিছুটা বিপাকে পড়ে ক্রেতা-বিক্রেতারা। হাটে ক্রেতাদের চাহিদা মাঝারি সাইজের দেশি গরুর প্রতি। বড় গরুর তুলনায় ছোট ও মাঝারি গরুর চাহিদা ও দাম কিছুটা বেশি।

সরেজমিনে কলেজ হাটে গিয়ে দেখা যায়, পশুর হাটে বিপুল সংখ্যক গরু, ছাগল ও ভেড়ার আমদানি। আবার বেচাকেনাও ভালো বলে জানিয়েছে ক্রেতা-বিক্রেতারা।

আক্কেলপুর কলেজ হাটে আসা গরু বিক্রেতা জানব আলী বলেন, আমি একটি গরু বিক্রয় করেছি। হাটে গরু কিনতে আসা ব্যাপারী জালাল রহমান বলেন, গত হাটে তেমন গরু কিনতে পারিনি। আমার টার্গেট ছিল ১৫টি গরু কেনার। আমি কিনেছি মাত্র ৭টি গরু। গরুর বাজার খুব বেশি। গরুগুলো আমরা ঢাকায় নিয়ে গিয়ে বিক্রয় করি।

কলেজ হাটে কিনতে আসা গরু ক্রেতা মো. রানা চৌধুরী বলেন, এবার গরু কিনে ঠকেছি। হাটে ভালোই গরু এসেছে তারপরেও বাজার ঊর্ধ্বগতি। ষাট পঁয়ষট্টির গরু এবার আশি পঁচাশি হাজার।

আক্কেলপুর কলেজ হাট ও বাজার ইজারাদার মো. সাজ্জাদ হোসেন (পল্টু) বলেন, সবদিক থেকে হাটটি নিরাপদ তাই ক্রেতা-বিক্রেতার আকর্ষণ এই হাটের প্রতি বেশি। আগামী শনিবারে আক্কেলপুর কলেজ হাট ও বাজারে আরো বেশি কোরবানির পশু ক্রয়-বিক্রয় হবে বলে আশা করছি। হাটের সকল পশুই প্রায় দেশি জাতের।

আক্কেলপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সাইদুর রহমান বলেন, গরুর ব্যাপারীরা যাতে ভালোভাবে হাটে আসতে পারে এবং ক্রেতা-বিক্রেতারা যাতে কোনো সমস্যা ছাড়াই গরু হাট থেকে ক্রয়-বিক্রয় করতে পারে সেদিকটা লক্ষ্য রেখে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে পোশাকে ও সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্যদের নিয়োগ করা হয়েছে। 

তিনি আরো বলেন, “সাদা পোশাকধারী এসব পুলিশ সদস্যরা সাধারণ মানুষের মাঝে মিশে গিয়ে কাজ করছেন। এ হাটে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার জন্য তাদের মোতায়েন করা হয়েছে।”

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট