বৃহস্পতিবার   ২৫ এপ্রিল ২০২৪ || ১১ বৈশাখ ১৪৩১

প্রকাশিত: ১৬:৩১, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

মাতৃভাষায় বিশুদ্ধতার চর্চা রাসূলুল্লাহ (সা.) এর শিক্ষা

মাতৃভাষায় বিশুদ্ধতার চর্চা রাসূলুল্লাহ (সা.) এর শিক্ষা
সংগৃহীত

পৃথিবীর বৈচিত্র্য  মহান রাব্বুল আলামিন আল্লাহ তাআলার অসীম কুদরতের অনুপম নিদর্শন। পৃথিবীর মানুষ, প্রকৃতি ও অন্যসব সৃষ্টির বৈচিত্র্যের মতো মানুষের ভাষাগত বৈচিত্র্যও আল্লাহর কুদরতের অন্যতম নিদর্শন।

আল্লাহ তাআলা পবিত্র কোরআনুল কারিমে বলেন, ‘তার নিদর্শনাবলির মধ্যে রয়েছে আকাশমণ্ডলী ও পৃথিবীর সৃষ্টি এবং তোমাদের ভাষা ও বর্ণে বৈচিত্র্য। এতে জ্ঞানীদের জন্য অবশ্যই নিদর্শন রয়েছে’। (সূরা: আর রুম, আয়াত: ২২)

আল্লাহ তাআলা আরো বলেন, ‘দয়াময় আল্লাহ, তিনিই শিক্ষা দিয়েছেন কোরআন, তিনিই সৃষ্টি করেছেন মানুষ, তিনিই তাকে শিক্ষা দিয়েছেন ভাষা’। (সূরা: আর রাহমান, আয়াত: ১-৪)

মাতৃভাষায় বিশুদ্ধতার চর্চা রাসূলুল্লাহ (সা.) এর শিক্ষা

মাতৃভাষা শিক্ষা ও এর বিশুদ্ধ চর্চার প্রতি ইসলাম সব সময়ই উৎসাহিত করেছে। বিশ্বনবী রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর মাতৃভাষা ছিল আরবি। আর তিনি ছিলেন তার মাতৃভাষা তথা আরবিতে সবচেয়ে সুন্দর বিশুদ্ধভাষী।

রাসূলুল্লাহ (সা.) ছিলেন ভাষা ও সাহিত্যে সর্বাধিক নৈপুণ্যের অধিকারী। তার মুখনিঃসৃত কথা ছিল সাহিত্যের মানদণ্ডে অত্যন্ত উঁচু মাপের। তার বক্তৃতা ও বাচনভঙ্গি ছিল অতুলনীয়। তার রেখে যাওয়া হাদিসের ভার আরবি সাহিত্যের সর্বোচ্চ স্থান দখল করে আছে।

মহনবী রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম শৈশবেই বিশুদ্ধ আরবি ভাষা শিক্ষা গ্রহণ করেছিলেন এবং বিশুদ্ধ ও স্পষ্ট উচ্চারণে কথা বলতেন, যা শুনে লোকজন আশ্চর্য হয়ে যেত।

মাতৃভাষার চর্চা এবং তাতে দক্ষতা অর্জন করা নবীদের সুন্নত। মাতৃভাষায় বিশুদ্ধতার চর্চা স্বয়ং আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের শিক্ষা। এক সাহাবি তার দরবারে হাজির হয়ে বাইরে থেকে অনুমতি প্রার্থনা করেন এভাবে ‘আ-আলিজু?’ তিনি খাদেমকে বললেন, একে অনুমতি প্রার্থনার তরিকা শিক্ষা দাও। একে বলো, ‘আসসালামু আলাইকুম, আ-আদখুলু’ এ শিক্ষা পেয়ে সাহাবি বিশুদ্ধ ভাষায় অনুমতি প্রার্থনা করলে রাসূলুল্লাহ (সা.) তাকে অনুমতি দিলেন। (আবু দাউদ)

উপরোক্ত আলোচনা থেকে সুস্পষ্টভাবে প্রতীয়মান হয় যে, ইসলামে মাতৃভাষার গুরুত্ব ও তাৎপর্য অপরিসীম। তাই ইসলামের প্রচার-প্রসার, ওয়াজ-নসিহত, কথা-বক্তৃতা লেখনীর ক্ষেত্রেও মাতৃভাষাকে প্রাধান্য দিতে হবে।

ইয়া আল্লাহ! সবাইকে মাতৃভাষার বিশুদ্ধতার চর্চায় রাসূলুল্লাহ (সা.) এর শিক্ষা গ্রহণ করার তাওফিক দান করুন। আমিন। 

সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়