মঙ্গলবার   ০৫ মার্চ ২০২৪ || ২১ ফাল্গুন ১৪৩০

প্রকাশিত: ১২:৫৭, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

‘সুপার আর্থের’ খোঁজ পেলেন বিজ্ঞানীরা, মাত্র ১৩৭ আলোকবর্ষ দূরে

‘সুপার আর্থের’ খোঁজ পেলেন বিজ্ঞানীরা, মাত্র ১৩৭ আলোকবর্ষ দূরে
সংগৃহীত

সুপার-আর্থ—যেখানে ১৯ দিনে হয় এক বছর! মানুষের পৃথিবী থেকে ১৩৭ আলোকবর্ষ দূরে রয়েছে এটি। এক অভূতপূর্ব আবিষ্কারে, সম্প্রতি এমনটাই জানতে পেরেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। এখানে পৃথিবীর মতো প্রাণের সম্ভাবনা থাকতে পারে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

পৃথিবীর সঙ্গে সুপার-আর্থের অনেক মিল রয়েছে, সঙ্গে কিছু মজার তথ্যও রয়েছে। যেমন এটি আমাদের পৃথিবীর চেয়ে প্রায় দেড় গুণ বড়। এটি একটি লাল নক্ষত্রের চারপাশে ঘুরছে। সেই নক্ষত্রটি সূর্যের চেয়ে সামান্য ছোট হলেও এত গরম নয়, বেশ ঠান্ডা। এই গ্রহে পুরো বছর মাত্র ১৯ দিনেই কেটে যায়। বিজ্ঞানীরা এই গ্রহটির নাম দিয়েছেন ‘TOI-715 b’।

বিজ্ঞানীরা মনে করেন, পৃথিবী যেমন মহাকাশে সূর্যের চারদিকে ঘোরে, তেমনি এই গ্রহটি একটি বামন ও লাল রঙের নক্ষত্রের চারদিকে ঘোরে। সূর্য যেমন খুব গরম, বিপরীতে লাল তারাটি খুব ঠান্ডা। বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই গ্রহে জল থাকার সম্ভাবনা থাকতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে এখানে জীবনের অস্তিত্বকে অস্বীকার করা যায় না।

নাসা এখন TOI-175 b গ্রহটিকে বাসযোগ্য গ্রহের তালিকায় যুক্ত করেছে, যা ওয়েব টেলিস্কোপের সাহায্যে আরো ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করা যেতে পারে এবং সেখানে কী ধরনের বায়ুমণ্ডল রয়েছে তাও নির্ধারণ করা হচ্ছে। নাসা তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ‘আমরা এখনও এই গ্রহ সম্পর্কে আরও তথ্য সংগ্রহ করছি। ভূপৃষ্ঠের পানির উপস্থিতি ছাড়াও, মানুষের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ এবং অন্যান্য কারণও রয়েছে এই গ্রহে।’

প্রসঙ্গত, নাসার বিজ্ঞানীরা এর আগেও পৃথিবীর আকারের গ্রহ আবিষ্কার করেছেন। সেই গ্রহে নাকি পৃথিবীর মতো পাথরও খুঁজে পেয়েছিলেন।

 

সূত্র: ডেইলি-বাংলাদেশ

সর্বশেষ

জনপ্রিয়