• বৃহস্পতিবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৮

  • || ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

জাগ্রত জয়পুরহাট

তবুও বাংলাদেশের ভরসা সাকিব

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত: ১৭ অক্টোবর ২০২১  

বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে সাকিব আল হাসানকে পাওয়ার অপেক্ষা অবশেষে ফুরিয়েছে। গতকালই ওমানে বাংলাদেশ দলে যোগ দিয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। আইপিএলের ফাইনাল খেলে গতকাল দুবাই থেকে সড়ক পথে মাস্কাটে গিয়েছেন তিনি। সড়ক পথে আসায় কোয়ারেন্টিন করতে হয়নি তাকে। আজ (১৭ অক্টোবর) বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে খেলতে পারবেন তিনি।

সাকিবকে ছাড়াই বিশ্বকাপের প্রস্তুতি সেরেছিল বাংলাদেশ দল। ওমানে ক্যাম্প, আবুধাবিতে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে টাইগাররা। দল বিশ্বকাপ প্রস্তুতিতে থাকলেও সাকিব ব্যস্ত ছিলেন আইপিএলে। গত ৭ অক্টোবর পর্যন্ত ছাড়পত্র থাকলেও পরে আইপিএলের দল কলকাতা নাইট রাইডার্সের (কেকেআর) জন্য ছুটি বাড়িয়ে নিয়েছেন তিনি।

 

কেকেআরের হয়ে সাকিবের পারফরম্যান্স অবশ্য খুব উজ্জ্বল ছিল না। আমিরাত পর্বে কয়েকটি ম্যাচ সাইড বেঞ্চে বসে থাকার পর আন্দ্রে রাসেল ইনজুরিতে পড়ায় টানা চারটি ম্যাচ খেলেছেন সাকিব। গত শুক্রবার ফাইনালে শূন্য রানে আউট হয়েছেন তিনি। বল হাতে ৩ ওভারে ৩৩ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন।

আইপিএলে ব্যাটে-বলে ফ্লপ হলেও নিশ্চিতভাবেই বিশ্বকাপে বাংলাদেশের আশা-ভরসার কেন্দ্রবিন্দু সাকিব। মাহমুদউল্লাহর সবচেয়ে বড় অস্ত্র বাঁহাতি এ অলরাউন্ডার। তামিম ইকবালের অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশের নড়বড়ে টপঅর্ডারে আস্থার আশ্রয় হতে পারেন তিনি। স্পিন আক্রমণে নেতৃত্বটাও তার ওপরই ন্যস্ত থাকবে। কেকেআরে খেলার সঙ্গে ভালো অনুশীলনও হয়েছে সাকিবের। সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নেওয়ার সুযোগ পেয়েছেন তিনি। এখন বিশ্বকাপের মঞ্চে তার পারফরম্যান্সের দ্যুতি দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা।

 

যদিও সম্প্রতি ২২ গজে তার ফর্মহীনতা চিন্তার কারণ বটে। কেকেআরের জার্সিতে সময় খুব ভালো কাটেনি তার। সেই ব্যর্থতা ভুলে বিশ্বমঞ্চে দেশের জার্সি গায়ে মাঠ মাতাবেন সাকিব, এমনটাই সবার আশা।

 

ফরম্যাট ভিন্ন হলেও বাংলাদেশের সর্বশেষ বিশ্বকাপ স্মৃতিতে উজ্জ্বল সাকিবের অতিমানবীয় পারফরম্যান্স। ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপে ঈর্ষণীয় পারফরম্যান্স করেছেন তিনি। ৬০৬ রানের পাশাপাশি ১১ উইকেট নিয়েছিলেন। সতীর্থরা ভালো না করায় যথাযথ মূল্যায়ন পায়নি তার পারফরম্যান্স।

দেশের হয়ে আজ আরেকটি বিশ্বকাপ খেলতে নামবেন এ অলরাউন্ডার। ওয়ানডের পর ক্রিকেটের সবচেয়ে ছোট ফরম্যাটেও বড় কিছুর প্রত্যাশায় সাকিবের পানে চেয়ে থাকবে কোটি ভক্ত। বিশ্বকাপে তার সামনে আছে ইতিহাস গড়ার হাতছানি। টি-২০ তে বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি তিনি। শীর্ষে থাকা লাসিথ মালিঙ্গাকে (১০৭) ধরতে সাকিবের (১০৬) প্রয়োজন মাত্র ১ উইকেট। আজ স্কটিশদের বিপক্ষেই মালিঙ্গার পাশে নাম লেখাতে এবং লঙ্কান কিংবদন্তিকে ছাড়িয়ে টি-২০ তে সবচেয়ে বেশি উইকেটের মালিক হতে পারেন সাকিব। অর্জন, রেকর্ডের আলোয় আলোকিত হোক বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের বিশ্বকাপ। আদতে তাতে বাংলাদেশেরই লাভ বেশি।

জাগ্রত জয়পুরহাট
জাগ্রত জয়পুরহাট