মঙ্গলবার   ০৫ মার্চ ২০২৪ || ২১ ফাল্গুন ১৪৩০

প্রকাশিত: ১৬:৪৭, ১০ ডিসেম্বর ২০২৩

এভাবে খেলে ইপিএলে টিকে থাকা যায় না: টেন হাগ

এভাবে খেলে ইপিএলে টিকে থাকা যায় না: টেন হাগ
সংগৃহীত

বছরের শেষ দুই মাসে মুদ্রার দুই পিঠ দেখা হয়ে গেলো এরিক টেন হাগের। নভেম্বরে টানা তিন ম্যাচ জিতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের মাসসেরা কোচের পুরস্কারও উঠেছিল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কোচের হাতে। অথচ ডিসেম্বরের শুরুতেই আবারও ছন্নছাড়া ইউনাইটেড।

নিউক্যাসলের বিপক্ষে হার দিয়ে নতুন মাসের শুরু। গত সপ্তাহে ঘরের মাঠে চেলসিকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিয়েছিল ইউনাইটেড। কিন্তু পরের ম্যাচেই আবারও বিপর্যয়ের মুখ দেখে ‘রেড ডেভিল’রা। 
শনিবার রাতে ওল্ড ট্রাফোর্ডে বোর্নমাউথের বিপক্ষে ৩-০ গোলের ব্যবধানে হেরেছে ইউনাইটেড। ঘরের মাঠে এমন লজ্জাজনক পরাজয়ের পুরো দায় নিজের কাঁধে নিয়েছেন টেন হাগ। 

ইউনাইটেডের এমন বিপর্যয়ের পর সংবাদ সম্মেলনে টেন হাগ বলেছেন, ‘দল হিসেবে আমরা ভালো খেলতে পারিনি। আমাদের আরও উন্নতি করতে হবে।’ সময়টা খারাপ গেলেও শিষ্যদের ওপর পূর্ণ আস্থা আছে হাগের, ‘আমাদের হয়তো ধারাবাহিকতার অভাব আছে। কিন্তু আমাদের প্রতিটা ম্যাচে ভালো করার সামর্থ্য আছে।’

পয়েন্ট তালিকার তলানির দিকে থাকা বোর্নমাউথের বিপক্ষে ফুরফুরে মেজাজেই নেমেছিল রেড ডেভিলরা। কিন্তু থিয়েটার অব ড্রিমসে ম্যাচের শুরুতেই স্বাগতিক দলকে স্তব্ধ করে দেন ডমিনিক সোলাঙ্কি। খেলার তখন সবে পঞ্চম মিনিট। অনেক দর্শক হয়তো নিজের আসনই খুঁজে পাননি ঠিকঠাক। ইংলিশ মিডফিল্ডার লুইস কুকের ক্রস জালে জড়িয়ে সফরকারীদের এগিয়ে দেন সোলাঙ্কি।

শুরুতেই গোল পেয়ে নতুন উদ্যোমে ম্যাচে ছড়ি ঘুরাতে থাকে বোর্নমাউথ। একের পর এক আক্রমণে ব্যতিব্যস্ত রাখে ইউনাইটেডের রক্ষণ। ম্যাচের ২৪ মিনিটে আরও একবার বল জালে জড়িয়েছিল অতিথিরা। কিন্তু অফসাইডের কারণে বাতিল হয় সেই গোল। 

দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়াতে আক্রমণের হার বাড়িয়ে দেয় ইউনাইটেড। কিন্তু প্রতি আক্রমণে উল্টো গোল খেয়ে বসে স্বাগতিকরা। ম্যাচের ৬৮ মিনিটে ইংলিশ লেফট উইংগার মার্কাস ট্যাভেরনিয়েরের বাড়ানো বলে স্কোরলাইন ২-০ করেন ডেনিস তারকা ফিলিপ বিলিং। পাঁচ মিনিট পরেই আবার গোল। এবারও গোলের উৎস ট্যাভেরনিয়ের। ইউনাইটেডের কফিনে শেষ পেরেক বসান আর্জেন্টাইন ২৬ বছর বয়সী ডিফেন্ডার মার্কোস সেনেসি। 

প্রিমিয়ার লিগে তিন ম্যাচে দুই হার। চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে ছিটকে পড়ার শঙ্কাও আছে। এমন  বিপর্যয় থেকে বের হওয়ার উপায়ও বাতলে দিয়েছেন ইউনাইটেড বস, ‘বাস্তবতা হচ্ছে, দল হিসেবে আমাদের উন্নতি করতে হবে। আমাদের এক হতে হবে। ম্যাচের শুরু থেকেই আমাদের নিজেদের সেরাটা দিতে হবে।’

শুরুতে পিছিয়ে পড়াকেই বোর্নমাউথের বিপক্ষে হারের কারণ হিসেবে মানছেন টেন হাগ, ‘এটা আমি শুক্রবারেই (ম্যাচের আগের দিন) বলেছিলাম, এই লিগে (ইপিএল) খেলতে হলে আপনাকে সর্বোচ্চটা দিয়ে খেলতে হবে। নয়তো আপনি টিকে থাকতে পারবেন না। আজ সেটাই হয়েছে। আমরা পাঁচ মিনিটেই খোল হজম করে ওদের জন্য কাজটা সহজ করে দিয়েছি।’

শুরুতেই পিছিয়ে পড়াটা মানতে পারছেন না হাগ, তবুও হারের দায় নিচ্ছেন নিজের কাঁধেই, ‘এত সহজে গোল হজম করাটা মেনে নেওয়া যায় না। তবে এর দায় আমি নিজের কাঁধে নিচ্ছি। পরের ম্যাচের জন্য আমাদের প্রস্তুত হতে হবে। আমরা যেভাবে শুরু করেছিলাম, আমি সত্যিই হতাশ।’

ঘরের মাঠে ৩-০ গোলের পরাজয় পয়েন্ট তালিকায় এক ধাপ ওপরে ওঠার সুযোগ হাতছাড়া করল ইউনাইটেড। ১৬ ম্যাচে ২৭ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার ছয়ে আছে টেন হাগের শিষ্যরা। অন্যদিকে রেড ডেভিলদের বিধ্বস্ত করা বোর্নমাউথ সমান ম্যাচে ১৯ পয়েন্ট নিয়ে উঠে এসেছে তালিকার ১৩-তে। 

আগামী মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়নস লিগে বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে ম্যাচ ইউনাইটেডের। সে ম্যাচে হারলে চ্যাম্পিয়নস লিগ তো বটেই, এমনকি ইউরোপা লিগেও আর এই মৌসুমে খেলা হবে না টেন হাগের শিষ্যদের।  

সূত্র: Independent Tv

সর্বশেষ

জনপ্রিয়