মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০২৪ || ৭ শ্রাবণ ১৪৩১

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত : ১৫:২৯, ২০ জুন ২০২৪

৬ মাসের ব্যবধানে যমজ শিশুর জন্ম!

৬ মাসের ব্যবধানে যমজ শিশুর জন্ম!
সংগৃহীত

যমজ শিশু জন্মের এক অসাধারণ গল্প লিখলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের ৪২ বছর বয়সী নারী এরিন ক্ল্যান্সি। ৬ মাসের ব্যবধানে যমজ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন তিনি। যার মধ্যে প্রথম সন্তান জৈবিকভাবে হলেও দ্বিতীয় সন্তানটি এসেছে কৃত্রিম বা সারোগেট পদ্ধতিতে। যেই সন্তানটির জন্ম হয়েছে মা ক্ল্যান্সি থেকে ৯০০ মাইল দূরে। দ্য সানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে এমনটিই।

যমজ সন্তান জন্মদানের বিষয়টি নিয়ে মা এরিন ক্ল্যান্সি দ্য সানকে জানান, ‘নবজাতক ডিলানকে আমার বাহুতে ধরে রাখার বিষয়টি, আমি বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। সে খুব প্রাণবন্ত ছিল। আমি তার ‘যমজ’-এর সাথে দেখা করার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় ছিলাম, কারণ সে ছয় মাসের মধ্যে জন্মগ্রহণ করবে। আমি ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে ব্রায়ানের সাথে দেখা করি একটি অনলাইন ডেটিং সাইটের মাধ্যমে। এর তিন বছর পর আমরা ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে বিয়ে করেছিলাম। তখন ভেবেছিলাম সহজে সন্তান আসবে, তবে তা হয়নি।’

স্বাভাবিক উপায়ে চেষ্টা করেও সফল না হওয়ায় আইভিএফ চিকিত্সা শুরু করেন এরিন ক্ল্যাসি। প্রথম চেষ্টা ব্যর্থ হয়, এরপর দ্বিতীয় প্রচেষ্টাটি প্রাথমিকভাবে সফল হলেও সাত সপ্তাহে এসে গর্ভপাত হয় এরিনের। এসময় মানসিকভাবে কিছুটা বিধ্বস্ত হয়ে পড়েন এরিন। পরে তিনি এবং তার সঙ্গী সারোগেসিকে একটি বিকল্প হিসাবে বিবেচনা করতে শুরু করেন। শেষ পর্যন্ত সেই সারোগেটের মাধ্যমেই সন্তানের মুখ দেখেন তিনি।

যা নিয়ে এরিন বলেন, ‘বিস্তৃত গবেষণার পরে, আমরা একটি এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করি। ২০২২ সালের মে মাসে একজন সারোগেটের সাথে মিলিত হয়। আগস্টে, আমি আবিষ্কার করি যে আমি গর্ভবতী, কিন্তু ছয় সপ্তাহে রক্তপাত শুরু হয়। তবে আমরা সারোগেসি চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। উভয় গর্ভধারণই সফল হয়। ২০২৩ সালের মে মাসে, আমি ডিলানকে জন্ম দিয়েছিলাম, আমাদের সারোগেট বন্ধ্যত্বের লড়াই থেকে এখন আমি মুক্তি। আমি দুটি সুস্থ ছেলের মা হয়েছি।’

যমজ দুই সন্তানের নাম ডিলান ও ডেক্লান। যাদের নিয়ে এরিন বলেন, ‘লোকেরা হয়তো বলবে এটি কীভাবে সম্ভব? ডিলান নাচ পছন্দ করে এবং ডেক্লান আমাদের কুকুরদের পছন্দ করে।

 তারা যখন যথেষ্ট বড় হবে, তখন আমি তাদের ব্যাখ্যা করব কিভাবে তারা ভাই হয়ে উঠল। আমরা যেটা করেছি তা নিয়ে লোকেরা কী ভাববে তাতে আমার কিছু আসে যায় না।’

সারোগেসি বলতে মূলত বুঝায়, একজন নারীর গর্ভে অন্য দম্পতির সন্তান ধারণের পদ্ধতিকে। আর সেই পদ্ধতিতেই মাতৃত্বের স্বাদ নিয়েছেন এরিন ক্ল্যান্সি।

সূত্র: যুগান্তর

সর্বশেষ

জনপ্রিয়

সর্বশেষ