মঙ্গলবার   ২৫ জুন ২০২৪ || ১০ আষাঢ় ১৪৩১

জাগ্রত জয়পুরহাট

প্রকাশিত : ১১:০৭, ৪ মে ২০২৪

আপডেট: ১১:০৭, ৪ মে ২০২৪

জয়পুরহাটে তাপদাহের প্রকোপ ও ধুলাবালি থেকে বাঁচতে রাস্তায় পানি

জয়পুরহাটে তাপদাহের প্রকোপ ও ধুলাবালি থেকে বাঁচতে রাস্তায় পানি
সংগৃহীত

চলতি গ্রীষ্ম মৌসুমে তীব্র তাপদাহ ও অসহনীয় গরম এবং পৌর এলাকাকে ধুলা বালিমুক্ত করতে জয়পুরহাটের পাঁচবিবি পৌরসভার উদ্যোগে প্রতিদিন পৌর এলাকার বিভিন্ন রাস্তায় পানি ছিটানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর ফলে অসহনীয় গরমের প্রকোপ তেমন না কমলেও ধুলি বালি মুক্ত সড়কে স্বস্তিতে চলাচল করতে পাচ্ছেন পথচারী, রাস্তা ও ফুটপাতের ব্যবসায়ীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পৌরসভার পানিবাহী গাড়ি করে প্রতিদিন পৌর এলাকার প্রধান প্রধান সড়কে পর্যায়ক্রমে পানি ছিটিয়ে সড়ক গুলো ভিজিয়ে দেয়া হচ্ছে। এতে করে গরমের তীব্রতা না কমলেও ধুলা বালির প্রকোপ কমেছে। 

তবে পানি দেয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই পানি শুকিয়ে যাওয়ায় একাধিক বার পানি ছিটানো উচিত বলে মনে করছেন পথচারীরা। এ বৈরী  আবহাওয়ায় এত বড় এলাকায় পৌরসভার পানিবাহী একটি মাত্র গাড়ি হওয়ায় এ কার্যক্রমের যতটুকু সুফল পাওয়ার কথা তা হচ্ছে না বলে অনেকে মন্তব্য করেছেন । 

এ ব্যাপারে শহরের প্রধান সড়কের পাশে অবস্থিত টিন ব্যবসায়ী আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, পানি ছিটানোর ফলে বাতাসে উড়া ধুলা বালির তীব্রতা তেমন না থাকায় তারা উপকৃত হচ্ছেন। 

রাস্তার পাশে জুতার কারিগর নিতাই রবিদাস বলেন, গরম বাতাসে উড়া ধুলায় কাজ করা কষ্ট হলেও পানি ছিটানোয় ধুলার প্রকোপ কমেছে। 

পথচারী টুটুল বলেন, তীব্র তাপদাহের কারণে পাকা রাস্তা আগুনের ন্যায় গরম হয়ে থাকছে। সেই সাথে ধুলাবালি উড়ার কারণে রাস্তা দিয়ে চলাচল করা খুব কষ্টকর।  এমন সময়ে পৌর মেয়র পৌরসভার গাড়ি দিয়ে রাস্তায় পানি ছিটানোর ব্যবস্থা করায় চলাচল করতে অনেকটা স্বস্তি পাওয়া যাচ্ছে।

পৌর মেয়র আলহাজ হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, প্রচণ্ড তাপদাহে জনজীবন নাকাল হয়ে পড়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের কথা অনুযায়ী এটি আরো কিছুদিন চলবে। তাই পৌরবাসী ও পৌরসভার রাস্তায় চলাচলকারী পথচারীদের কিছুটা স্বস্তি দিতে পৌরসভার পক্ষ থেকে এই পানি ছিটানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। আগামী বর্ষার আগ পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে তিনি জানান।

সূত্র: দৈনিক ইত্তেফাক

সর্বশেষ

সর্বশেষ