শনিবার   ২২ জুন ২০২৪ || ৭ আষাঢ় ১৪৩১

প্রকাশিত : ১০:৪৪, ২১ জানুয়ারি ২০২৪

যে কারণে অধিনায়কত্বকে ‘ঝামেলা’ বলছেন তামিম

যে কারণে অধিনায়কত্বকে ‘ঝামেলা’ বলছেন তামিম
সংগৃহীত

এই তো বিপিএল শুরু হওয়ার মুহূর্তে পেসার তাসকিন আহমেদ বলেছিলেন— ভবিষ্যতে সুযোগ পেলে জাতীয় দলের অধিনায়ক হতে চান। এই ইচ্ছাটা প্রায় সব ক্রিকেটারেরই থাকে। তার এই কথার প্রমাণ আগেও দেখা গিয়েছিল। অধিনায়কত্ব নিয়ে দেশের দুই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের মাঝে স্নায়ুযুদ্ধ চলার শক্তিশালী গুঞ্জনও শোনা যায়।

তবে এখন অধিনায়কত্বকে ঝামেলা মনে হয় তামিমের, একইসঙ্গে আর উপভোগ করেন না বলেও জানিয়েছেন।

এশিয়া কাপের আগমুহূর্তে অনেকটা হুট তামিম জাতীয় দলের অধিনায়কত্ব ছেড়েছিলেন। তখন অল্প সময়ের ভেতর বড় টুর্নামেন্টে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য সাকিবকে রাজি করাতেও বেগ পাওয়ার কথা জানিয়েছিল বিসিবি। তবে শেষ পর্যন্ত তার অধীনে বাংলাদেশ এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপে খেলেছে। যদিও কাঙ্ক্ষিত সফলতা পায়নি টাইগাররা। সাকিব সংসদ সদস্য হওয়া সত্ত্বেও তিন ফরম্যাটে বাংলাদেশের অধিনায়ক আছেন। তামিম অধিনায়কত্ব করছেন কেবল বিপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি ফরচুন বরিশালের।

বিপিএলের দশম আসরে গতকাল সাকিবের রংপুর রাইডার্সের সঙ্গে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দেখা হয়েছে তামিমদের। যেখানে রংপুরকে ১৩৪ রানে থামানোর পর বরিশাল ৫ উইকেটের জয় পেয়েছে। ম্যাচটিতে বোলার ব্যবহার নিয়ে তামিমের নেতৃত্বের প্রশংসা করছেন অনেকে। অথচ বিপিএলের শুরুতে নাকি তামিম নেতৃত্বভার নিতে চাননি। মেহেদী হাসান মিরাজকে বরিশালের অধিনায়ক করার জন্য দলের মালিকপক্ষের সঙ্গে কথাও বলেন তিনি। যদিও তার এই চাওয়া পূরণ হয়নি।

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এ নিয়ে তামিম জানান, ‘অধিনায়কত্ব নিয়ে আমি আগে যা বলেছিলাম, এখনও তা-ই আছে। ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকদের থেকে আমার কাছে একটা দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আমি সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করব দায়িত্বটা পালন করতে। হ্যাঁ, একটু ভিন্ন তো অবশ্যই লেগেছে টস করতে গিয়ে। সত্যি বলতে আমি এই জিনিসগুলো খুব বেশি উপভোগ করি না। আমি উপভোগ করি, ওয়ার্ম আপ শেষ হবে। আরামসে বসে থাকব। ব্যাটিং ও ফিল্ডিং হয়েছে, ওটা গিয়ে খেলব। অধিনায়ক থাকলে পেপার কাগজে স্বাক্ষর করো, টস করো, টসে কী হবে, জিতব, হারব। অনেক ঝামেলা (হাসি)।’

এদিন দীর্ঘ চার মাস পর মাঠে নেমে ব্যাট হাতে কিছুটা পুরোনো তামিমের দেখা পেয়েছেন ক্রিকেট ভক্তরা। রানতাড়া করতে নেমে দেশসেরা এই ওপেনার ২৪ বল খেলে ৩৫ রান করেছেন। যদিও শুরুতে বেশ চাপ ছিল বলে দাবি বরিশাল অধিনায়কের, ‘স্নায়ুচাপ তো একটু হলেও থাকে। শুরুতে বাউন্ডারি পাওয়ায় আমার কাজটা সহজ হয়ে গেছে। অনুশীলনেও আমি ভালো ব্যাটিং করছিলাম। পিকেএসপিতে আমরা যে দুই দিন ম্যাচ সিনারিওতে খেলেছি, সেটা আমাকে অনেক সাহায্য করেছে। তারপরও নার্ভ তো থাকেই। তবে যখনই আপনি শুরুতে বাউন্ডারি পাবেন, তখন সেটা একটু কমে আসে।’

উল্লেখ্য, এর আগে তামিম সবশেষ প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলেছেন গত বছরের সেপ্টেম্বরে, ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে। তারপর তার বিশ্বকাপে না থাকা নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। লম্বা বিরতির পর বিপিএল দিয়ে আবারও মাঠে নামলেন তামিম।

সূত্র: ঢাকা পোস্ট

সর্বশেষ

সর্বশেষ