শনিবার   ০২ মার্চ ২০২৪ || ১৮ ফাল্গুন ১৪৩০

প্রকাশিত: ১১:৩৫, ১০ ডিসেম্বর ২০২৩

উন্নতি করতে নয়, জিততে এসেছিঃ শান্ত

উন্নতি করতে নয়, জিততে এসেছিঃ শান্ত
সংগৃহীত

‘আমরা উন্নতি করছি, আমরা শিখছি’ -হারের পর ক্রিকেটার কিংবা কোচের মুখ থেকে এমন মন্তব্য শুনতেই অভ্যস্ত দেশের ক্রিকেট ভক্তরা। ক্রিকেটের অভিজাত সংস্করণ টেস্ট ক্রিকেটে এই চর্চা আরও বেশি। 

এই টেস্ট ক্রিকেটে ক্রিকেটারদের শরীরি ভাষা বদলাচ্ছে, আগ্রাসী মনোভাবে হাজির হচ্ছেন একেকজন, সঙ্গে পারফরম্যান্সের গ্রাফও ধীরে ধীরে উপরের দিকেই যাচ্ছে। মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে ঐতিহাসিক টেস্ট জয়ের পর এবার ঘরের মাঠে পূর্ণ শক্তির নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশ জয় পেয়েছে। 

দ্বিতীয় টেস্টেও হাতছানি দিচ্ছিল জয়। তবে ব্যাটিংটা প্রত্যাশামতো করতে পারেনি। শেষ পর্যন্ত দেড়’শর কম পুঁজি নিয়েও লড়াই করে হেরেছে লাল-সবুজের দল। নাজমুল হোসেন শান্তর দল মাঠে দেখিয়েছে, হারের আগেই হেরে যাওয়া নয়।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসেও শান্তর কণ্ঠে ঝরেছে আগ্রাসী মনোভাবের প্রতিধ্বনি, ‘টেস্ট ক্রিকেটে তো আমরা উন্নতি করতে আসি নাই, জিততে আসছি। এইখানে জেতার জন্য আমাদের প্রস্তুতিটা কেমন হওয়া উচিত, তা গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু এই ধরনের অ্যাডভান্টেজ অবশ্যই নেওয়া উচিত।’

‘আমার মনে হয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট প্র্যাকটিসের জায়গা না। এখানে ইম্প্রুভ করারও কিছু নাই যে ভালো উইকেটে খেলে আমরা ভালো ম্যাচ খেললাম। এখানে আমরা জেতার জন্য আসি।’

ঢাকা টেস্টে দুই দলই কোনো ইনিংসে দুই’শ পর্যন্ত যেতে পারেনি। বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে ১৭২ রানে অলআউট হয়। নিউ জিল্যান্ড করে ১৮০ রান। ৮ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ অলআউট হয় মাত্র ১৪৪ রানে। এখানেই পিছিয়ে যায় স্বাগতিক শিবির। শেষ পর্যন্ত হারতে হয় ৪ উইকেটে। 

ব্যাটিংয়ের জন্য পিচ কঠিন ছিল। তবে যেভাবে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের ব্যাটিং মুখ থুবড়ে পড়েছে, এমনও ছিল না। কুয়াশা কাটিয়ে রোদ ফিরতেই উইকেট কিছুটা সহজ হচ্ছিল।

শান্ত বলেন, ‘সিলেটের উইকেটটায় বোলারদের জন্য খুব বেশি হেল্প যে ছিল, তা বলব না। বোলাররা বোলিং করেছে, ব্যাটাররাও কষ্ট করে রান করেছে। দুই ধরনের হেল্পই ছিল।’

‘এই টেস্টের কথা যদি বলি, আমরা ব্যাটাররা খুব একটা ভালো ব্যাটিং করিনি। প্রথম ইনিংসে ২৩০-২৪০ রানের উইকেট ছিল। ওই জায়গায় আমরা রানটা কম করার কারণে মনে হয়েছে উইকেটটা অনেক খারাপ। অবশ্যই নতুন বলে চ্যালেঞ্জ ছিল, প্রত্যেকটা সিচুয়েশনই থাকে, যখন আমরা অ্যাওয়েতে খেলি, তখনও নতুন বলের চ্যালেঞ্জটা থাকে। এখানে আলাদা কিছুই ছিল না। আমরা ব্যাটিংটা আরেকটু বেটার করলে হয়তো এই পরিস্থিতি তৈরি হতো না’ -আরও যোগ করে শান্ত।

সূত্র: risingbd.com

সর্বশেষ

জনপ্রিয়